সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ধরা পড়লেন এপিপি এনাম, অতঃপর…

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: ১৯ পিস ইয়াবাসহ আটকের পর সুনামগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের এপিপি মো. আমিরুল হক এনামকে তিন মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যামান আদালত।

সোমবার বিকেলে ভ্রাম্যামাণ আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাকিল আহমদ এ রায় দেন। এনামের সঙ্গে শহরের ইয়াবা ডন খ্যাত তাজ আলীকেও তিন মাসের কারাদণ্ড দেন আদালত।

জানা যায়, দীর্ঘ দিন ধরেই শহরের মোহাম্মদপুর এলাকায় বাসা নিয়ে আমিরুল হক এনাম মাদক সেবন ও ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছিল। এমন খবরের ভিত্তিতে তার ভাড়া বাসায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও পুলিশের সহযোগিতায় অভিযান চালায় ভ্রাম্যামাণ আদালত।

অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে বাসা থেকে সহযোগিসহ পালিয়ে যায় এনাম। এসময় তার বাসা থেকে ১৯পিস ইয়াবা ও ইয়াবা সেবনেরর উপকরণ উদ্ধার করা হয়। পরে মোহাম্মদপুর এলাকার পার্শবর্তী আলীপাড়া সড়ক থেকে সহযোগী তাজ আলীসহ তাকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সন্ধ্যায় ভ্রাম্যামাণ আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাকিল আহমদ তাদের দুজনকে তিন মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাকিল আহমদ জানান, দণ্ডপ্রাপ্তদের কারাগারে প্রেরণ করা হবে।

আমিরুল হক এনামের বাড়ি সুনামগঞ্জের জগন্নথপুর উপজেলায়। তাজ আলী শহরের বড়পাড়ার আহম্মদ আলী ছেলে। তাজ আলী শহরের বড় ইয়াবা করবাড়ি হিসেবে পরিচিত। ইয়াবাসহ বেশ কয়েকবার পুলিশের হাতে আটক হয়ে জেল খেটেছিল সে।

শেয়ার করুন