ভিসা না পাওয়ায় নাসায় যাওয়া অনিশ্চিত টিম অলিকের

শাবি প্রতিনিধি:: ভিসা না পাওয়ায় নাসায় যাওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে নাসা ‘স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ’ ২০১৮ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্বকারী দল সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের টিম “অলিক” এর। শুক্রবার টিম অলিক এর পক্ষ থেকে বিষয়টি জানানো হয়।

টিম অলিক সূত্রে জানা যায়, নাসা থেকে টিম অলিককে আমন্ত্রণপত্র দেওয়া হয় চলতি বছরের ২১ জুন সেইসাথে ভিসার জন্য আবেদন করা হয় ১ জুলাই। ১১ জুলাই ভিসার জন্য ইন্টারভিউ দেওয়া হলেও আমেরিকান দূতাবাস থেকে ভিসা আবেদন প্রত্যাখ্যান করে দেওয়া হয়। এতে কারণ হিসেবে আই এন এর ২১৪(বি) ধারায় ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হয় বলে উল্লেখ করা হয়।

টিম অলিক আরও জানায়, ২১ থেকে ২৩ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় নাসা কেনেডি স্পেস সেন্টারে তাদের ইভেন্ট হওয়ার কথা। বিমানের টিকিট এবং হোটেল বুকিং দেওয়া হয়েছে। আইসিটি মন্ত্রণালয় তাদের সকল খরচ বহন করছে। টিম অলিকের ৫জজনের সাথে আইসিটি মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পদস্থ ৬জন কর্মকর্তা, বেসিসের ৫জনসহ মোট ১৬জন সদস্যের একইসাথে নাসায় যাওয়ার আমন্ত্রণপত্র থাকা সত্ত্বেও টিম অলিক এর মেম্বার, মেন্টর, বেসিস এর মেম্বার সহ মোট ৮ জনের ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ এর লোকাল অর্গানাইজার(বেসিস) আইসিটি ডিভিশন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ইউএস এম্বাসেডর এর সাথে যোগাযোগ করেছে।

এই বিষয়ে টিম অলিক এর মেন্টর শাবির সিএসই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্ত্তী সিলেটের সকালকে বলেন, স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়াটা অবশ্যই বাংলাদেশের জন্য গর্বের কিন্তু নাসা থেকে আমন্ত্রণ পাওয়া সত্ত্বেও ভিসা সংক্রান্ত জটিলতায় আমাদের সেখানে যাওয়া এখন প্রায় অনিশ্চিত। এই রকম একটি প্রতিযোগিতায় আমাদের দেশ থেকে একটি দল প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন হয়ে যদি সেখানে অংশগ্রহণ না করতে পারে তাহলে ভবিষ্যতে আমাদের দেশের তরুণ প্রতিযোগীদের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের উৎসাহ হারিয়ে যাবে, তাদের স্বপ্ন দেখার পরিধি অনেক ছোট হয়ে যাবে। এই সকল বিষয়ে বাংলাদেশ সরকার এবং বাংলাদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের দূতাবাসের উচিৎ এই তরুণ মেধাবীদের পাসে এসে দাড়ানো এবং তাদের সর্বাত্মকভাবে সাহায্য করা।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৯-২০ অক্টোবর স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ প্রতিযোগিতায় শীর্ষ ৪০টি প্রকল্পকে নিয়ে ঢাকার ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটিতে টানা ৩৬ ঘণ্টার হ্যাকাথন অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে শীর্ষ ৮টি প্রকল্পকে নাসার চূড়ান্ত প্রতিযোগিতার জন্য মনোনয়ন দেয়া হয়। আটটি মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রকল্প থেকে প্রথমবারের মতো দুটি ক্যাটাগরির শীর্ষ চারে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশের দুইটি টিম। যার একটি টিম অলিক এবং অন্যটি হচ্ছে টিম প্ল্যানেট কিট। চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি ছয়টি ক্যাটাগরিতে শীর্ষ ২৫টি দলের মধ্যে ছয়টি চ্যাম্পিয়ন দলের নাম ঘোষণা করে নাসা। সেখানে বেস্ট ইউজ অব ডেটা ক্যাটাগরিতে ক্যালিফোর্নিয়া, কুয়ালালামপুর আর জাপানকে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে শাবির এই টিম অলিক। প্রতিযোগিতায় টিম অলিকের লুনার ভি আর প্রজেক্টটি ছিল মূলত একটি ভার্চুয়াল রিয়েলিটি অ্যাপ্লিকেশন, যার মাধ্যমে ব্যবহারকারী চাঁদে ভ্রমণের একটি অভিজ্ঞতা পাবেন।

শেয়ার করুন