বাড়ছে পানি, ফের বিপদসীমার ওপরে সুরমা-কুশিয়ারা

ফাইল ছবি

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: সিলেটের সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর সবকটি পয়েন্টে বিপদসীমার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। সোমবার সবচেয়ে বেশি পানি বেড়েছে সুরমার কানাইঘাট পয়েন্টে। বিকেল ৩টার তথ্য অনুসারে এ পয়েন্টে ১০০ সেন্টিমিটার বিপদসীমার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। একই সময়ে সুরমার সিলেট পয়েন্টে বিপদসীমা ছুঁয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছিল।

এর আগে দুপুর ১২টায় সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টে বিপদসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে এবং সিলেট পয়েন্টে ১১ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছিল। সেই হিসেবে সুরমার কানাইঘাট পয়েন্টে পানি দ্রুত গতিতে বেড়ে চলছে। তবে বিকেল ৩টায় জৈন্তাপুরের সারি নদীর সারি পয়েন্টে পানি বিপদসীমার ৬৭ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

এছাড়া বিকেল ৩টায় কুশিয়ারা নদীর আমলশীদ পয়েন্টে পানি ১৯ সেন্টিমিটার, শেওলা পয়েন্টে ১০ সেন্টিমিটার এবং শেরপুর পয়েন্টে ৩০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যেখানে দুপুর ১২টায় আমলশিদ পয়েন্টে বিপদসীমার ১১ সেন্টিমিটার, শেওলায় ৮ সেন্টিমিটার এবং শেরপুরে ২৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছিল।

এর আগে চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও লাগাতা বর্ষণে সিলেটের ১৩ উপজেলায় বন্যা দেখা দেয়। সুরমার পানি বেড়ে যাওয়ায় সিলেট নগরের নদী তীরে কয়েকটি এলাকাও পানিতে তলিয়ে যায়। এক সপ্তাহ স্থিতিশীল থাকা এ বন্যায় সাড়ে তিন লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হন বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসন।

এরপর গত বুধবার থেকে পানি নামতে শুরু করেছিল। তবে গত দুদিনের টানা বর্ষণে ফের নদীর পানি বাড়তে শুরু করেছে। এ কারণে নতুন করে বন্যার আতঙ্কে রয়েছেন জনসাধারণ। আবহাওয়ার অধিদপ্তর বলছে, সোমবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সিলেটে ৩৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। এর আগের ২৪ ঘন্টায় ৯০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছিল।

শেয়ার করুন