ফেঞ্চুগঞ্জে বন্যার পানি কমছে, ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি :: সিলেটে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় বন্যার পানি কমে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসছে। গত দুদিনে কুশিয়ারা নদীতে ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে ধীর গতিতে পানি কমতে শুরু করেছে। তবে উপজেলার বেশকয়েকটি এলাকার মানুষ এখনো পানিবন্দি হয়ে আছে।

বন্যান কারনে উপজেলার বাঘমারা, সুড়িকান্দি, কচুয়াবহর ও গয়াশী সরকারি স্কুলের পাঠদান বন্ধ রয়েছে। তবে খুব শ্রীঘ্রই স্কুলগুলোতে পাঠদান কার্যক্রম স্বাভাবিক হয়ে আসবে আশা করছেন অভিভাবকরা।

এদিকে বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে ৫টি টিম গঠন করে পরিস্থিতি পর্য্যবেক্ষেণসহ ত্রাণ বিতরনের ব্যবস্হা করেছিল উপজেলা প্রশাসন। উপজেলায় ১৩টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছিল। তবে পানিবন্দী মানুষ কেউ আশ্রয় কেন্দ্রে উঠেনি। লোকজন নিজেদের বসত ভিটায় অবস্থান করেছে।

গত ১৭ জুলাই প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ভান্ডার থেকে ১০০টি বন্যা আক্রান্ত পরিবারের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী ও শুকনো খাবারের পেকেট বিতরন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব জসীম উদ্দীন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বদরুদ্দোজা, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক লাকী রানী দে, উপ-সহকারী প্রকৌশলী জনস্বাস্হ্য সজল চন্দ শিকদার, ইউপি সদস্য দিলা মিয়া প্রমুখ।

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার জসীম উদ্দীন জানান, এ পর্যন্ত ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় ২১ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ এসেছে যার মধ্যে ৫টি ইউনিয়নে ২০ মে. টন চাল বিতরন করা হয়েছে।

শেয়ার করুন