ফাইনাল ম্যাচ টাই, গড়াল সুপার ওভারে

স্পোর্টস ডেস্ক ::শিরোপার স্বাদ কেমন, তা জানা ছিলো না দুই দলের কারোরই। এর আগে তিনবার ফাইনাল খেলেও ট্রফিতে চুমু খাওয়া হয়নি ইংল্যান্ডের। অন্যদিকে বিশ্বকাপের গত আসরে ঘরের মাঠে হওয়া টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলেও, চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি নিউজিল্যান্ড।

তাই লর্ডসের ফাইনালে জয়ী হতো যারা, তারাই পেতো প্রথমবারের মতো বিশ্বসেরা হওয়ার গৌরব। এ লক্ষ্য মাথায় নিয়ে খেলতে নেমে অল্প পুঁজি নিয়েও দারুণ লড়েছে নিউজিল্যান্ড। এবারের বিশ্বকাপে ৬ বার ৩০০+ রান করা ইংলিশদের মাত্র ২৪১ রানের সংগ্রহ দাঁড় করিয়ে কাঁপিয়ে দিয়েছে কেন উইলিয়ামসনের দল।

তবে শেষ পর্যন্ত মূল ম্যাচে জেতেনি কোনো দল। শেষ ওভারের নাটকীয়তায় সুপার ওভারে গেল ইংল্যান্ড বনাম নিউজিল্যান্ডের ফাইনাল। এর ফলে ওয়ানডে বিশ্বকাপ ইতিহাসে প্রথমবার এমন ঘটনার সাক্ষী হলো বিশ্ব ক্রিকেট।

শেষ ওভারে ইংল্যান্ডের জয়ের জন্য ১৫ রান দরকার ছিল। ট্রেন্ট বোল্টের করা ওভারের প্রথম দুটি বল স্ট্রাইকের থাকা বেন স্টোকস ডট দেন। তৃতীয় বলে তিনি ছক্কা হাঁকান ও চতুর্থ বলে দৌড়ে দুই রান নেওয়ার পর মার্টিন গাপটিল থ্রো করলে স্টোকসের গায়ে লেগে বাউন্ডারি হয়। যোগ হয় ছয় রান।

পঞ্চম বলে এক রান নেওয়ার পর নন স্ট্রাইকে থাকা আদিল রশিদ রান আউটের শিকার হন। শেষ বলে জয়ের জন্য দুই রান দরকার হলে স্টোকস দুই রান নিতে গেলে, এবার মার্ক উড রান আউট হন। ম্যাচ টাই হয়।

এর আগে ইংল্যান্ডকে ২৪২ রানের টার্গেট দেয় নিউজিল্যান্ড।

শেয়ার করুন