আয়কর দিয়ে দেশকে উন্নতির দিকে নিয়ে যাওয়ার আহ্বান সিসিক মেয়রের

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আয়কর সনদ সর্ব ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। আয়কর দেওয়ার অর্থ এই নয়, যে আপনার উপর আয়করের বুঝা বেড়ে যাবে। আয়কর দিয়ে নিজে নিশ্চিত হন, দেশকে উন্নতির দিকে নিয়ে যান।

বুধবার সিলেট সিটি করপোরেশনের ৭,৮,৯ ও ১০ নং ওয়ার্ডে আয়কর জরিপ কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় মেয়র আরও বলেন, ‘সিলেটে শতকরা ৭০ ভাগ বাড়িঘর প্রবাসের টাকায় নির্মিত। তাদের কষ্টার্জিত অর্থ দেশে পাঠায়। প্রবাসীদের রেমিটেন্সের টাকা দেশের ব্যবসা বানিজ্যে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। তাই প্রবাসীদের আইনগতভাবে কিভাবে সহায়তা করা যায়, সেদিকে লক্ষ্য রাখতে আহ্বান জানান তিনি।’

তিনি এও বলেন, আয়কর বিষয়ে এখনো মানুষের মধ্যে পুরোনো সেই ভীতির ভ্রান্ত ধারণা বিরাজমান রয়েছে। এজন্য সহজে কর আদায় করতে হলে মানুষের মধ্যে থেকে ভীতি কাটাতে হবে। সাধারণ মানুষ যেনো সহজভাবে বুঝতে পারে, আইনজীবিদের কাছ থেকে এ ধরণের সহজ পদ্ধতি প্রণয়ন দরকার।

সিলেট কর অঞ্চলের কর কমিশনার রনজীত কুমার সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সিসিকের ৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফতাব হোসেন খান, ৮ নং ওয়াডে কাউন্সিলর মো. ইলিয়াছুর রহমান, ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মখলিছুর রহমান কামরান, ১০ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিল তারেক উদ্দিন তাজ, আয়কর আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল ফজল, সাবেক সভাপতি মৃত্যুঞ্জয় ধর ভুলা, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকরামুল কবীর, প্রবীণ সাংবাদিক আফতাব চৌধুরী, অনলাইন প্রেসক্লাব সভাপতি মুহিত চৌধুরী ও করদাতা স্বপন বর্মন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সিলেটে রাজস্ব ভবন দাবি তোলেন আয়কর কর আইনজীবীরা।

সহকারি কর কমিশনার মো. নাসির উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বগত বক্তব্য দেন সিলেট কর অঞ্চলের যুগ্ম কর কমিশনার পঙ্কজ লাল সরকার। উপস্থিত ছিলেন, যুগ্ম কর কমিশনার সাহেদ আহমদ চৌধুরী ও উপ কর কমিশনার (সদর ও প্রশাসন) কাজল সিংহ।

সিলেট কর অঞ্চল সূত্র জানায়, জরিপে ২০১৭-১৮ সালে ৩৮ হাজার লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ২৫ হাজার ২৭৮ জন করদাতা সনাক্ত করা হয়। আর ২০১৮-১৯ সালে ২৭ হাজার লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ২৭ হাজার ৯২০ জন করদাতা সনাক্ত করা হয়। ২০১৯-২০ সালে করদাতা বাড়ানোর লক্ষ্যমাত্রা ২৮ হাজার থাকলেও তা ৫০ হাজারে উন্নীত করা হবে জানান সিলেট কর অঞ্চলের কর কমিশনার রনজীত কুমার সাহা।

শেয়ার করুন