‘সীমান্তিক মানব সম্পদ তৈরী, শিক্ষা ও চিকিৎসা ক্ষেত্রে কাজ করছে‘

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: সীমান্তিক এর চীফ পেট্রোন, রূপালী ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান, মানবসম্পদ উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ডঃ আহমদ আল কবির বলেছেন, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সীমান্তিক মানব সম্পদ তৈরীর লক্ষ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ আন্তরিকতা ও সুনামের সাথে কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, চিকিৎসা উন্নয়নসহ সবক্ষেত্রে এ প্রতিষ্ঠান অবদান রেখে যাচ্ছে। তিনি বলেন, দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে আমাদেরকে অংশীদার হতে হলে প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মকে মানবসম্পদে রূপন্তর করে স্ব স্ব অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে।

শুক্রবার দুপুরে সিলেট নগরীর মাছিমপুরস্থ বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. আহমদ আল কবীর সীমান্তিক কমপ্লেক্সের হল রুমে সীমান্তিকের ৪১তম বার্ষিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথাগুলো বলেন।

সীমান্তিকের চেয়ারপার্সন শফিকুল ইসলাম তাপাদার এর সভাপতিত্বে ও মহাসচিব, সিলেট জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ শামীম আহমদ এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সীমান্তিকের নির্বাহী পরিচালক কাজী মোঃ মোকসেদুর রহমান, সীমান্তিক ঢাকা কমিটির সভাপতি ডঃ আহমদ আল ওয়ালী, সিলেট জেলা কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাজেদ আহমদ, কালিগঞ্জ কমিটির সদস্য আব্দুল হাই। বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন সীমান্তিকের ভাইস চেয়ারপার্সন ও সিলেট জেলা পরিষদের সদস্য সাজনা সুলতানা চেীধুরী, কোষাধ্যক্ষ ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের অধ্যাপক করীমা বেগম, উপ-নির্বাহী পরিচালক কাজী হুমায়ুন কবীর ও পারভেজ আলম, পরিচালক শিক্ষা আব্দুর রইফ তাপাদার, কালিগঞ্জ কমিটির কোষাধ্যক্ষ জাকারিয়া স্বপন। এছাড়াও সীমান্তের কেন্দ্রীয়, আঞ্চলিক, প্রশাসনিক কমিটির সকল সদস্য এবং সকল প্রকল্প ও ইন্সিটিটিউটের প্রধানসহ কমৃকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন সীমান্তিক আইডিয়াল স্কুলের শিক্ষক আলমগীর হোসেন ও গীতা পাঠ করেন সীমান্তিক-ডেভলপিং মিডওয়য়াইফ এর শিক্ষার্থী লিমা ব্যানার্জী।

এর আগে সকল সাড়ে ৯টায় সীমান্তিকের সকল কমিটির সদস্য এবং সীমান্তিকের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তাদের অংশ গ্রহণে প্রকল্পভিত্তিক বার্ষিক বাজেট উপস্থাপিত হয়।

অনুষ্ঠানে ২০১৮-১৯ সেশনের কার্যক্রমের বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজেট উপস্থাপন করেন সীমান্তিকের নির্বাহী পরিচালক কাজী মোঃ মোকসেদুর রহমান।

সীমান্তিক-ডেভলপিং মিডওয়য়াইফ প্রকল্পের স্টুডেন্ট মিডওয়াইফারীদের জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যম অনুষ্ঠানে শুরু হয়। মিডওয়য়াইফারী শিক্ষার্থীদের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ হয়।

শেয়ার করুন