লিডিং ইউনিভার্সিটিতে ‘সেন্সরি আরবানিজম এন্ড প্লেসমেকিং’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: সিলেটের প্রথম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় লিডিং ইউনিভার্সিটিতে ‘সেন্সরি আরবানিজম এন্ড প্লেসমেকিং’ -শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্যালারী-০১ অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ডেকিন ইউনিভার্সিটির স্কুল অব আর্কিটেক্চার এন্ড বিল্ট এনভায়রন্মেন্ট-এর এসোসিয়েট হেড, স্কুল অব টিচিং এন্ড লার্নিং ড. বাও বেজা। এ সেমিনারের আয়োজন করে লিডিং ইউনিভার্সিটির স্থাপত্য বিভাগ।

স্থাপত্য বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক স্থপতি রাজন দাসের সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. কামরুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ‘যদিও বাংলাদেশে আমাদের জায়গার স্বল্পতা রয়েছে তবুও পরিকল্পিতভাবে স্থাপনা তৈরী করলে তা পরিবেশবান্ধব হবে । তিনি বলেন, নগরায়ন ও স্থপনা গড়ে তোলতে স্থপতিদের পরিবেশবান্ধব ডিজাইন এবং প্লান তৈরি করতে হবে এবং সেক্ষেত্রে তাদের দায়িত্ব অনেক।’

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চিটাগাং ডেভেলপমেন্ট অথোরিটির চিফ টাউন প্লানার স্থপতি সাহিনুল খান, লিডিং ইউনিভার্সিটির স্থাপত্য বিভাগের উপদেষ্টা প্রফেসর সৈয়দা জেরিনা হোসেন এবং অতিরিক্ত আলোচক হিসেবে অস্ট্রেলিয়ার ডেকিন ইউনিভার্সিটির পি.এইচ.ডি শিক্ষার্থী স্থপতি মেহেরিনা জাফরিন।

ব্যক্তি, প্রকৃতি এবং পরিবেশ এর কথা বিবেচনায় রেখে নগরায়ন করতে হবে উল্লেখ করে প্রধান আলোচক ড. বাও বেজা তার গবেষণাপত্র উপস্থাপনায় বলেন, ‘মানুষ যেমন পঞ্চইন্দ্রিয়ের মাধ্যমে তার চারিপাশের ভৌত-জগত থেকে অভিজ্ঞতা অর্জন করে, তেমনি ঐ ভৌত-প্রতিবেশেরও রূপ-রস-শব্দ-গন্ধ-স্পর্শ কাতরতার তথ্য ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করে রূপান্তরমূলক প্রভাবগুলি মূল্যায়নে নিয়ে প্রয়োজনীয় তাত্ত্বিক এবং পরীক্ষামূলক প্রমাণকে কাজে লাগাতে হবে আধুনিক নগরায়নের নকশা এবং অবকাঠামো তৈরির সময়। সেক্ষেত্রে আর্কিটেক্টদের গবেষণা এবং আদর্শগত দৃষ্টিভঙ্গিকে অগ্রাধিকার দিতে হবে।’

স্থপতি মেহেরিনা জাফরিন ‘চট্টগ্রাম শহরে সাধারণ নাগরিকের জন্য প্রবেশযোগ্য খোলা স্থান’ নিয়ে তার চলমান গবেষণা উপস্থাপন করেন। গবেষণা এবং অভিজ্ঞতার আলোকে নান্দনিক অবকাঠামো উন্নয়নের পাশাপাশি লেন্ডস্কেপ ডিজাইন বিষয়ক শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের সঠিক দিকনির্দেশনা প্রদান করেন অনুষ্ঠানে উপস্থিত আলোচক এবং বিশেষ অতিথিবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন লিডিং ইউনিভার্সিটির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মোস্তাক আহমাদ দীন, আধুনিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. এম রকিব উদ্দিন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর মো. সামস-উল আলম, কলা ও আধুনিক ভাষা অনুষদের ডীন প্রফেসর নাসির উদ্দিন আহাম্মেদ, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মেজর (অব.) মো শাহ আলম, পিএসসি, ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর মো. রাশেদুল ইসলাম, সহকারী অধ্যাপক স্থপতি শওকত জাহান চৌধুরী, শাহ্জালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের প্রধান সহযোগী অধ্যাপক স্থপতি কৌশিক সাহা, সহকারী অধ্যাপক স্থপতি রেজোয়ান সোবহান, বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, স্থাপত্য বিভাগের শিক্ষার্থী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন