ভিআইপি গ্যালারিতে বসে বাজেট শুনলেন মুহিত!

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন হয়েছে বৃহস্পতিবার। এসময় সংসদের ভিআইপি গ্যালারিতে বসে বাজেট শুনেন সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বয়োজ্যেষ্ট এ সাবেক মন্ত্রী টানা আওয়ামী লীগ সরকারের গত দুই মেয়াদের টানা দশবার বাজেট পেশ করে রেকর্ড গড়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টা ৩৮ মিনিটে হুইল চেয়ারে সংসদের ভিআইপি গ্যালারিতে প্রবেশ করেন তিনি। এর আগে বিকেল ৩টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়। বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। নতুন অর্থমন্ত্রী হিসেবে এটি তার প্রথম বাজেট। যদিও গত সরকারের পরিকল্পনামন্ত্রী হিসেবে অনেক বাজেট প্রণয়নে পরোক্ষভাবে জড়িত ছিলেন তিনি।

তবে একাদশ জাতীয় সংসদে নতুন অর্থবছরের বাজেট পেশের শুরুর কিছুক্ষণ পর অসুস্থ বোধ করায় স্পীকারের অনুমতিক্রমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই বাকি অংশটুকু পড়েন।

এবারের প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা, যা জিডিপির ১৮ দশমিক ১ শতাংশ। এবারের বাজেটে পরিচালনসহ অন্যান্য খাতে মোট বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৩ লাখ ২০ হাজার ৪৬৯ কোটি টাকা। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকা।

সংসদে বাজেট উত্থাপনের পর.বাজেট প্রতিক্রিয়ায় সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘বাজেট ডিক্লেরেশন (ঘোষণা) খুবই সুন্দর হয়েছে। আমি আমার বক্তব্যের কোথায়ও বক্তব্য ও তথ্য উপাত্ত তুলে ধরতাম না। কিন্তু এবার অর্থমন্ত্রী উপস্থাপনার মাধ্যমে প্রস্তাবিত বাজেট তুলে ধরেছেন। তবে বাজেট বাস্তবায়ন খুবই কঠিন। কারণ মানুষ ট্যাক্স দিতে চায় না। ট্যাক্স আদায়ে দক্ষিণ এশিয়ায় আমরা (বাংলাদেশ) নিচের দিকে।’

উল্লেখ্য, আবুল মাল আবদুল মুহিত সিলেট-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে নবম ও দশম জাতীয় সংসদে সরকারের অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। এ দুই মেয়াদেই টানা বাজেট পেশ করেছেন তিনি। এর আগে টানা ছয়বার বাজেট পেশের রেকর্ড গড়েছিলেন আওয়ামী লীগের সরকারের সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া। ১৯৯৬-৯৭ অর্থবছর থেকে ২০০১-০২ অর্থবছর পর্যন্ত টানা ৬টি বাজেট পেশ করেছিলেন তিনি।

তবে ব্যক্তিগত জীবনে মুহিতের দেয়া বাজেটের সংখ্যা ১২টি। সংখ্যার দিক থেকে এখন পর্যন্ত প্রয়াত অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান তিন দফায় ১২টি বাজেট দিয়ে সর্বোচ্চ বাজেটদাতা হিসেবে শীর্ষে ছিলেন। এর আগে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শাসনামলে ১৯৮২-১৯৮৩ ও ১৯৮৩-১৯৮৪ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেন মুহিত।

একাদশ সংসদে সিলেট-১ আসনটি তার ভাই ড. এ কে আবদুল মোমেনের জন্য ছেড়ে দেন। মোমেন নির্বাচনে জয়লাভও করেন। তিনি সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দায়িত্বে রয়েছেন।

শেয়ার করুন