দু’টি রুশ ভিভিইআর- ১২০০ পারমাণবিক বিদ্যুৎ ইউনিট স্থাপনে চুক্তি চীনের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: চীন তাদের নতুন জুদাপু পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে দু’টি রুশ ভিভিইআর-১২০০ পারমাণবিক বিদ্যুৎ ইউনিট স্থাপনের জন্যে রাশিয়ার সঙ্গে জেনারেল কনট্র্যাক্ট স্বাক্ষর করেছে। গত ৫ জুন চীনের প্রেসিডেন্ট শি ঝিংপিং এর রাশিয়া সফরকালে মস্কো’তে চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়।

উভয় দেশের রাষ্ট্র প্রধানদের উপস্থিতিতে জুদাপু পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের ইউনিট- ৩ এবং ৪ এর জন্য চুক্তিগুলোতে স্বাক্ষর করেন রসাটম রাষ্ট্রীয় কর্পোরেশন এর প্রকৌশল শাখা- এটমস্ট্রয়এক্সপোর্ট (এএসই) এবং চায়না ন্যাশনাল নিউক্লিয়ার কর্পোরেশন (সিএনসিসি) প্রতিনিধিবৃন্দ।

রসাটমের মহাপরিচালক আলেক্সি লিখাচভ তার বক্তব্য বলেন, “নতুন একটি সাইটে রুশ ডিজাইনের পারমাণবিক বিদ্যুৎ ইউনিট প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আমরা কার্যকরী অধ্যায়ে প্রবেশ করেছি। তিয়ানওয়ান প্রকল্পের জন্য ইতোপূর্বে স্বাক্ষরিত চুক্তিগুলো বিবেচনা করলে আগামী ২০২৮ সাল নাগাদ চীনা অংশীদারদের সঙ্গে আমাদের সর্বাধুনিক ৩+ প্রজন্মের ৪টি পাওয়ার ইউনিট নির্মান করতে হবে”।

উল্লেক্ষ্য, চলতি বছরের মার্চে চীনের তিয়ানওয়ান পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে দু’টি ভিভিইআর-১২০০ রিয়্যাক্টর ইউনিট (ইউনিট- ৭ এবং ৮) নির্মানের জন্য চীন এবং রাশিয়ার মধ্যে জেনারেল কনট্র্যাক্ট স্বাক্ষরিত হয়।

জুদাপু প্রকল্পের ৩ এবং ৪ নম্বর ইউনিটের পাওয়ার স্টার্ট-আপের লক্ষ্যমাত্রা যথাক্রমে ২০২৭ এবং ২০২৮ সালে নির্ধারন করা হয়েছে। তিয়ানওয়ান প্রকল্পের ৭ নম্বর ইউনিটের স্টার্ট-আপ ২০২৬ এবং ৮ নম্বর ইউনিটের ২০২৭ সালে হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

পারমাণবিক শক্তি সেক্টরে আগামী দশকগুলোতে রাশিয়া এবং চীনের মধ্যে সহযোগীতার মূল ক্ষেত্রগুলো নির্ধারনকারী কৌশলগত চুক্তি প্যাকেজের আলোকে বর্তমান চুক্তিগুলো স্বাক্ষরিত হয়েছে। ২০১৮ সালের ৮ই জুন রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের চীন সফরকালে কৌশলগত চুক্তির প্যাকেজ স্বাক্ষরিত হয়।

ভারতও সম্প্রতি ভিভিইআর-১২০০ পাওয়ার ইউনিট স্থাপনের জন্য রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশের পাবনা জেলার রূপপুরে অনুরূপ দু’টি ভিভিইআর-১২০০ রিয়্যাক্টর ভিত্তিক পারমাণবিক বিদ্যুৎ ইউনিট স্থাপনের কাজ করছে রাশিয়া।

শেয়ার করুন