গোয়াইনঘাটের পর্যটন স্পটগুলোতে ভ্রমণ পিপাসুদের ঢল

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি :: পবিত্র ঈদুল ফিতরের ছুটিতে সিলেটের গোয়াইনঘাটের পর্যটন স্পটগুলোতে ভ্রমণ পিপাসুদের ঢল নেমেছে।

প্রকৃতির অপরূপ লীলাভূমি গোয়াইনঘাটের বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রগুলোত ভীড় জমিয়েছেন পর্যটকরা। জাফলং, লালাখাল, রাতারগুল, বিছনাকান্দিসহ বিভিন্ন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটকদের ভীড় ছিল প্রচুর।

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাকও সপরিবারে বৃহস্পতিবার রাতারগুল সোয়াম ফরেস্ট পরিদর্শন করেন।

ভারতের মেঘালয় পাহাড়ঘেঁষা প্রকৃতির অপরূপ লীলাভূমি প্রকৃতি কন্যা জাফলং, পান্তুমাই’র ঝর্ণা, বিছনাকান্দির স্বচ্ছ-সফেদ পানি আর সোয়াম ফরেস্ট খ্যাত রাতারগুল, ভোলাগঞ্জের জিরো লাইনে সাদা পাথরের অপরুপ দৃশ্য এক নজর দেখতে কার না মন চায়। প্রকৃতির টানে বাংলাদেশের অনেক জেলা থেকে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের পাশাপাশি উঠতি বয়সী যুবক-যুবতীরা ছুটে এসেছেন সিলেটে ঈদের ছুটি কাটাতে। তাদের বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছ্বাসে পর্যটন স্পটগুলোতে সৃষ্টি হয় অন্যরকম আবহের।

সরেজমিনে দেখা যায়, জাফলংয়ের মামার দোকান থেকে শুরু করে বল্লাঘাট পর্যন্ত সহস্রাধিক পর্যটকবাহী গাড়ীর লাইন। রাস্তাঘাট, রেষ্টুরেন্টের সম্মুখ ছাড়াও ক্রাশার জোন এলাকায় পার্কিং করে রাখা হয়েছে বিপুল সংখ্যক গাড়ি।

ভোলাগঞ্জ জিরো লাইনে শুক্রবার সপরিবারে বেড়াতে আসা স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ শামছুল ইসলাম বলেন, এখানে না এলে এর প্রকৃত সৌন্দর্য্য উপভোগ করা যেতো না। পাথরের সাথে পানির ঢেউয়ের মিতালী, মেঘালয়ের সবুজ পাহাড় এবং পাথরের স্তুপ যে কারোরই মন জুড়াবে। এখানে বেড়াতে আসতে পেরে পরিবারের সদস্যরা খুশি বলে জানালেন এ সরকারি কর্মকর্তা।

বিছনাকান্দিতে দেখা যায়, সেখানে বিপুল সংখ্যক ভ্রমন পিপাসু লোক ভিড় জমিয়েছেন। নারী পুরুষ, যুবক যুবতী, শিক্ষক ছাত্র, ব্যবসায়ী, জনপ্রতিনিধি ও রাজনীতিবিদসহ কয়েক হাজার লোকের আনা গোনা সেখানে লক্ষ্য করা যায়।

ঢাকা থেকে আসা গার্মেন্টস কর্মী রুবাইয়া জানান স্বামীকে নিয়ে প্রথম এসেছেন রাতারগুল দেখতে। জানালেন, স্পটটি দেখে খুব ভাল লেগেছে।

জাফলং ক্ষুধা রেস্টুরেন্টের প্রোপাইটার শফিকুল ইসলাম বিক্রমপুরী জানান, জাফলংয়ে প্রতিবারের ন্যায় এবারও বিপুল সংখ্যক পর্যটক এসেছেন।

গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ কুমার পাল জানান, সেখানে পর্যটকদের নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। প্রতিটি পর্যটন এলাকায় পর্যটক তথ্যকেন্দ্র এবং ট্যুরিস্ট পুলিশ মোতায়েন রয়েছে বলে জানান তিনি।

গোয়াইনঘাট থানার ওসি মোঃ আব্দুল জলিল জানান, পর্যটকদের নিরাপত্তার বিষয়ে তারা সচেষ্ট রয়েছেন।

শেয়ার করুন