বড়লেখায় নারী আইনজীবী খুনের ঘটনায় ভাড়াটিয়া আটক

বড়লেখা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় আবিদা সুলতানা (২৭) নামে এক আইনজীবী খুনের ঘটনায় ভাড়াটিয়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত ইমামের নাম তানভির আহমদ (৩২)।  সোমবার দুপুরে তাকে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ ওই উপজেলার বরুনা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

পুলিশ জানায়, বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের মাধবগুল গ্রামের মৃত হাজী আব্দুল কাইয়ুমের তিন মেয়ের মধ্যে আইনজীবী আবিদা সবার বড়। আবিদা মৌলভীবাজার জজ আদালতের আইনজীবী। স্বামী শরীফুল ইসলাম একটি ওষুধ কোম্পানিতে কর্মরত। তিনি স্বামীর সঙ্গে মৌলভীবাজার শহরে বসবাস করতেন।

রোববার বাবা বাসায় গিয়ে খুন হন আবিদা। তার বাবার বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে জকিগঞ্জ উপজেলার আমান্দি গ্রামের মইনুল ইসলামের ছেলে তানভীর আহমদ থাকতেন।

রোববার সকাল আনুমানিক সাড়ে ৮টায় আবিদা বিয়ানীবাজারে বোনের বাড়ি থেকে জরুরি প্রয়োজনে বাবার বাড়িতে যান। বিকেল ৪টার দিকে আবিদার বোন তার মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাচ্ছিলেন না। পরে আবিদার বোন তাকে খুঁজতে বাবার বাড়ি আসেন। বাড়িতে এসে তারা কাউকে পাননি। এ সময় ঘরের একটি কক্ষ বন্ধ দেখতে পেয়ে তাদের সন্দেহ হয়। পরে তারা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ বন্ধ ঘরের মেঝেতে পড়ে থাকা অবস্থায় আবিদার লাশ উদ্ধার করে।

হত্যাকান্ডের পর থেকে পলাতক ইমাম তানভীর আহমদকে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ উপজেলার বরুণা থেকে গ্রেফতার করে বড়লেখা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

সোমবার দুপুরে শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস ছালেক এ কথা নিশ্চিত করেছেন। এর আগে ভাড়াটিয়া ইমাম তানভীরের মা ও স্ত্রীকে বড়লেখা থানা পুলিশ আটক করে।

বড়লেখা থানার ওসি মোহাম্মদ ইয়াছিনুল হক জানান, নিহতের মাথা ও গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ভাড়াটিয়া তানভির আহমদ পলাতক থাকায় তানভীরের মা ও স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

শেয়ার করুন