পলিথিন ব্যবহার থেকে সকলকে বিরত থাকতে বললেন পরিবেশমন্ত্রী

শাবি প্রতিনিধি ॥ পরিবেশ রক্ষার্থে পলিথিন ব্যবহার থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন। তিনি বলেন, পরিবেশের ক্ষতির মূল কারণ হচ্ছে পলিথিন। পলিথিনের কারণে আমাদের পরিবেশ ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। খাল, বিল, নদী-নালা, সাগর সব ভরাট হয়ে যাচ্ছে। আপনারা মানুষকে পলিথিন ব্যবহার থেকে বিরত রাখবেন।

শুক্রবার সকালে সাড়ে ১১টায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে শাবির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ২০বছর পূর্তি উদযাপন ও পুনর্মিলনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।
দুই দিনব্যাপী ২০বছর পূর্তি উদযাপন ও পুনর্মিলনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্কুল অব ম্যানেজমেন্ট এন্ড বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশনের ডীন অধ্যাপক ড. মোছাদ্দেক আহমদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি তানভীর আহমেদ শাকিল।
মন্ত্রী বলেন, বলেন, কিছু কিছু ঘটনা আমাদেরকে ব্যথিত করে। ফেনীর মাদ্রাসা ছাত্রীর মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত এবং এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সকলের আমরা শাস্তি চাই।
এ রকম কিছু কিছু ঘটনা আমাদের সামাজিকভাবে প্রতিহত করতে হবে এবং দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমাদের যে লক্ষ্য, সে লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য আমাদের কাজ করে যেতে হবে।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের বাংলাদেশ গড়বেন এবং ২০৪১ সালে একটি উন্নত বাংলাদেশ গড়বেন। সেই মধ্যম আয়ের এবং উন্নত দেশ গড়া আপনাদেরকে ছাড়া সম্ভব হবে না। সেজন্য আপনাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে এবং আমাদের সরকারের যে লক্ষ্য, সে লক্ষ্য পূরণের জন্য আপনাদেরকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী ফয়জুল্লাহ ওয়াসিফের সঞ্চালনায় সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে শাবি উপাচার্য বলেন, এখানকার ১০% ছাত্র দেশের বাইরে চাকরি করে। এখানকার ছাত্ররা খুবই মেধাবী। কিন্তু অবকাঠামোর দিকে দিয়ে আমাদের যতদূর এগিয়ে যাওয়ার কথা ছিলো আমরা ততদূর যেতে পারিনি। এখানে প্রায় ৬০০ জন শিক্ষকের মধ্যে মাত্র ১৬ জন শিক্ষকের ভিতরে থাকার ব্যবস্থা আছে। আর মাত্র ৮জন অফিসারের থাকার ব্যবস্থা আছে ভিতরে। আগামী সপ্তাহে একনেকে যাবে ছেলেমেয়েদর ৪টা হল এবং একাডেমিক ভবনের বাজেট বরাদ্দের জন্য।
শাবির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের ২০ বছর পূর্তি উদযাপন ও পুনর্মিলনী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান ড. মো. নজরুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মো. মনিরুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মো. খায়রুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মাজহারুল হাসান মজুমদার, অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মুনীর আহমেদ চৌধুরী। প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থী নিজাম উদ্দিন আকন্দ, আল-হারামাই হসপিটালের এম ডি এহসানুল রহমান, বারডেমের সাবেক চিকিৎসক ডা. এম ফয়েজ উদ্দিন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন আহবায়ক তানভির আহমাদ তরফদার।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আগে শাবির শিক্ষা ভবন ‘ই’ এর সামনে থেকে ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সকলের অংশগ্রহণে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে কেক কেটে ২০ বছর পূর্তি উদযাপন ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী। উদ্বোধনী শেষে বিভাগের অ্যালামনাই ওয়েবসাইট উদ্বোধন করেন। এছাড়া বিভাগের ২০বছর পূর্তি উদযাপন ও পুনর্মিলনী উপলক্ষে অতিথিরা একটি সুভেনিরের মোড়ক উন্মোচন করেন।
দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের প্রথম দিন শুক্রবার শাবির মুক্তমঞ্চ প্রাঙ্গণে অর্থহীন ব্যান্ডের মেগা কনসার্ট অনুষ্ঠিত হয় এবং ২য় দিনে শনিবার থাকবে খেলাধুলা, স্মৃতিচারণ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও র‌্যাফেল ড্র।

শেয়ার করুন