‘লেখক-কবিদের ফুলের মত ঘ্রাণ ছড়াতে হবে সৃষ্টিশীলতার মধ্য দিয়ে’

কেমুসাসের ১০৩০তম সাহিত্য আসর

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের ১০৩০তম সাহিত্য আসরে বক্তারা বলেছেন, সাহিত্য আসর লেখকদের লেখা সমৃদ্ধ করে। এখানে সাহিত্য চর্চার মাধ্যমে তাদের মেধা উজ্জ্বল হয়ে থাকে। বক্তারা বলেন, লেখক-কবিদের ফুলের মত ঘ্রাণ ছড়াতে হবে সৃষ্টিশীলতার মধ্য দিয়ে।

বৃহস্পতিবার রাতে সংসদের সাহিত্য আসর কক্ষে অনুষ্ঠিত সাহিত্য আসরে সভাপতিত্ব করেন কবি ও সাহিত্য সমালোচক অধ্যাপক বাছিত ইবনে হাবীব। পঠিত লেখার ওপর আলোচনায় অংশ নেন- কবি মুকুল চৌধুরী, বিশিষ্ট লেখক-গবেষক আবু সালেহ আহমদ ও জৈন্তাপুর ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক কবি শাহাব আল দীন।

লেখাপাঠে অংশ নেন- কেমুসাসের কার্যকরী পরিষদের সদস্য মাওলানা ফজলুল করিম আজাদ, ইনাম চৌধুরী, সিরাজুল হক, কামাল আহমদ, কুবাদ বখত চৌধুরী রুবেল, আব্দুল কাদির জীবন, মাহমুদ শিকদার,মোঃ বাহাউদ্দিন বাহার, রায়হান কবির,মোঃ আক্তার হোসেন, মুজাহিদুল ইসলাম, হিমেল মাহমুদ, স¤্রাট তারেক, মিদহাদ আহমদ, আহসান হাবীব রাফাত, শাহিনা জালালী, আছমা আক্তার, সুমাইয়া আক্তার, জুবের আহমদ সার্জন, মকসুদ আহমদ, মোঃ আবু তাহের সিদ্দিকী, আহমদ জাবীর। আসর উপস্থাপনা করেন গল্পকার তাসলিমা খানম বীথি। আসরের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আবু যর মাহতাবী।

শেয়ার করুন