৬ সংবাদকর্মী পেলেন সিলেট প্রেসক্লাব-এমসি ফাউন্ডেশন পুরস্কার

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: সেরা প্রতিবেদক ও আলোকচিত্রির পাঁচ ক্যাটাগরিতে সিলেট প্রেসক্লাব-এমসি ফাউন্ডেশন পুরস্কার-২০১৮ পেয়েছেন সিলেটে কর্মরত ছয় সংবাদকর্মী। সোমবার বিকেলে সিলেট প্রেসক্লাবের আমিনুর রশীদ হলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তাদের হাতে সম্মাননা সনদ ও পুরস্কারের নগদ অর্থ তুলে দেন অতিথিরা। প্রথমবারের মতো সিলেট প্রেসক্লাবের সদস্যদের নিয়ে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, স্থানীয় সংবাদপত্র ক্যাটাগরিতে দৈনিক সিলেটের ডাক’র স্টাফ রিপোর্টার ইউনুছ চৌধুরী, জাতীয় সংবাদপত্রে দৈনিক প্রথম আলোর জুনিয়র রিপোর্টার মানাউবী সিংহ শুভ, আলোকচিত্রে ডেইলি স্টারের শেখ আশরাফুল আলম নাসির, টেলিভিশন প্রতিবেদনে যৌথভাবে চ্যানেল ২৪ এর গোলজার আহমেদ ও সময় টেলিভিশনের মো. আবদুল আহাদ এবং টেলিভিশন ভিডিওচিত্রে সময় টেলিভিশনের চিত্র সাংবাদিক দিগেন সিংহ।

ক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম বলেন, ‘পেশাদারিত্বের বিকাশের জন্য সাংবাদিকতা পুরস্কার খুবই গুরুত্ব বহন করে। পুরস্কার প্রদানের মাধ্যমে সাংবাদিকদের মধ্যে কাজের প্রতিযোগিতা সৃষ্টি হয়। তিনি বলেন, সাংবাদিকরা সমাজের চোখ কান নাক। সমাজের অসঙ্গতি ধরিয়ে দেন একজন সাংবাদিক। তবে শুধু নেগেটিভ খবরকেই খবর বলা যাবে না। পজেটিভ খবর আরো বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

ক্লাবের পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক খালেদ আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ। সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন এমসি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা মহিব চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন ক্লাবের সিনিয়র সহসভাপতি এনামুল হক জুবের, সহসভাপতি এম এ হান্নান, দৈনিক প্রভাত বেলা সম্পাদক কবীর আহমদ সুহেল, সিনিয়র সাংবাদিক ছিদ্দিকুর রহমান, দৈনিক জালালাবাদের চিফ রিপোর্টার আহবাব মোস্তফা খান, দৈনিক সিলেটের ডাক এর সিনিয়র রিপোর্টার কাউসার চৌধুরী, প্রমুখ। শুরুতে কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন ক্লাব সদস্য ইদ্রিছ আলী।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মহিব চৌধুরী বলেন, আমি জীবনের সিংহভাগ সময় সাংবাদিকতা পেশায় কাটিয়েছি, বহু সমাজসেবামূলক কাজ করেছি। সাংবাদিকদের পেশাগত উৎকর্ষ সাধনে এমন সুন্দর একটি উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে পেরে নিজেকে গৌরবান্বিত বোধ করছি। এ পুরস্কারের মাধ্যমে সিলেটের সাংবাদিকদের মধ্যে পেশাগত কাজের শুদ্ধ প্রতিযোগিতা সৃষ্টি হবে বলে আশা করেন তিনি।

অনুষ্ঠানের শেষপর্বে আজীবন এ পুরস্কার প্রদানের লক্ষ্যে সিলেট প্রেসক্লাব ও এমসি ফাউন্ডেশনের মধ্যে চুক্তিস্বাক্ষর সম্পন্ন হয়।

শেয়ার করুন