বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা কাদের খানকে দাফন

বিনোদন ডেস্ক:: বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা কাদের খানকে দাফন করা হলো টরন্টোর মিডভেল সিমেট্রিতে। তাঁর ছেলে সরফরাজ খান জানিয়েছেন, কানাডার স্থানীয় সময় অনুযায়ী গতকাল বুধবার বেলা আড়াইটায় কাদের খানকে দাফন করা হয়। শেষ যাত্রায় আগা সম্প্রদায়ের স্থানীয় সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। তাঁরাই চোখের জলে কাদের খানকে বিদায় জানান। কানাডার টরন্টোর একটি হাসপাতালে গত ৩১ ডিসেম্বর কাদের খান শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর মরদেহ মুম্বাই আনতে চাননি তাঁর পরিবার। যদিও বার্তা সংস্থা পিটিআইকে সরফরাজ খান বলেছেন, ‘মুম্বাই নয়, বাবাকে টরন্টোতে দাফন করা হবে। এখানে আমাদের পুরো পরিবার রয়েছে। আমরা সবাই এখানেই থাকি। তাই বাবার শেষ কাজও এখানেই হবে।’

এর আগে বার্তা সংস্থা পিটিআইকে কাদের খানের মৃত্যুর সংবাদ নিশ্চিত করেন সরফরাজ খান। তিনি বলেন, ‘বাবা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। কানাডার সময় অনুযায়ী ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ছয়টায় তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি বিকেলেই কোমাতে চলে যান। দীর্ঘদিন ধরে তিনি অসুস্থ। ১৭ সপ্তাহ ধরে তিনি হাসপাতালেই ছিলেন।’ কানাডার একটি হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। স্ত্রী সাহিস্তাকে নিয়ে সরফরাজ খান কানাডায় আছেন। কাদের খানও দীর্ঘদিন তাঁদের কাছেই ছিলেন। মৃত্যুকালে কাদের খান স্ত্রী হাজরা, তিন ছেলে ও তাঁদের স্ত্রী এবং নাতি-নাতনি রেখে গেছেন।

পিটিআই আগেই জানিয়েছে, কাদের খান শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। চিকিৎসকেরা তাঁকে নিয়মিত ভেন্টিলেটর থেকে বাইপ্যাপ ভেন্টিলেটরে স্থানান্তরিত করেন। দুই দিন আগে জানা যায়, তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। এই পুরো সময়টা কাদের খানের ছেলে সরফরাজ আর তাঁর স্ত্রী হাসপাতালেই ছিলেন।

কাদের খান অনেক দিন থেকেই প্রোগ্রেসিভ সুপ্রানিউক্লিয়ার পলসিতে (পিএসপি) ভুগেছিলেন। এ সমস্যায় রোগীরা স্বাভাবিক ভারসাম্য ও স্মৃতি হারিয়ে ফেলেন। পিএসপির কারণে তিনি বাক্শক্তি হারিয়ে ফেলেন। ২০১৫ সালে মুম্বাইয়ে তাঁর হাঁটুতে একটি অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল।

কাদের খানের জন্ম আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে। বলিউডে তিন শতাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। ২৫০টি ছবির সংলাপ লিখেছেন। রাজেশ খান্না অভিনীত ‘দাগ’ ছবি দিয়ে ১৯৭৩ সালে বলিউডে অভিনয়জীবন শুরু করেন কাদের খান।

শেয়ার করুন