প্রথম বাংলাদেশি-আমেরিকান সিনেটর শেখ রহমানকে সংবর্ধনা প্রদান

সিলেটের সকাল ডেস্ক:: যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া স্টেট সিনেটে প্রথম নির্বাচিত বাংলাদেশি-আমেরিকান সিনেটর শেখ রহমানসহ মধ্যবর্তী নির্বাচনে বিজয়ী বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিদেরকে গণ সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। ‘এলায়েন্স অব সাউথ এশিয়ান-আমেরিকান লেবার’-অ্যাসাল জর্জিয়া চ্যাপ্টার গত ১৪ জানুয়ারী সোমবার সন্ধ্যায় জর্জিয়ার নরক্রোসের ২০৫১ বিভার রুইন রোডের ইন্ডিয়ান গ্রিলে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

অ্যাসাল জর্জিয়া চ্যাপ্টারের প্রেসিডেন্ট মোঃ আলী হোসেনের সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারি সৈয়দ আলমের তত্ত্বাবধানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জর্জিয়া স্টেট সিনেটর শেখ রহমান, স্টেট সিনেটর জাহরা কারিনশাক. নিউইয়র্ক থেকে টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন অ্যালায়েন্স অব সাউথ এশিয়ান আমেরিকান লেবার-অ্যাসাল’র প্রতিষ্ঠাতা এবং ন্যাশনাল কমিটির প্রেসিডেন্ট শ্রমিক ইউনিয়ন নেতা মাফ মিসবাহ উদ্দিন, অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন অ্যাসাল’র ন্যাশনাল কমিটির সেক্রেটারী এম করিম চৌধুরী, জর্জিয়া স্টেট রিপ্রেজেন্টেটিভ ডানা ম্যাকলায়েড, ড. জেসমিন ক্লার্ক, কমিউনিটি এক্টিভিস্ট ড. আওয়াল ডি খান, মোহন জব্বার, ড. নিয়াজ উল্লাহ, হাসান কামাল, শহীদুল ইসলাম, মো. হাসান, আজাদ রহমান, জেসমিন এন খান মিল্কি, হারভার্ড ইউনিভার্সিটির ছাত্র তৌহিদ ইলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন কমিউনিটির নানা শ্রেণী-পেশার বিপুল সংখ্যক প্রবাসী অংশ নেন।

গত ৬ নভেম্বর অনুষ্ঠিত মধ্যবর্তী নির্বাচনে অ্যাসাল’র আজীবন সদস্য শেখ রহমান ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী হিসেবে সিনেট ডিস্ট্রিক্ট-ফাইভ থেকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হওয়ায় তাকেসহ জর্জিয়া স্টেটে নির্বাচিত অন্যান্য জনপ্রতিনিধিদের ব্যাপকভাবে সংবর্ধিত করা হয়। ডেমোক্রেটিক পার্টির জাতীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য কিশোরগঞ্জের সন্তান শেখ রহমানকে সর্বাত্মকভাবে সমর্থন দেয় ‘এলায়েন্স অব সাউথ এশিয়ান আমেরিকান লেবার’-অ্যাসাল জর্জিয়া চ্যাপ্টার।

সিনেটর শেখ রহমান তাঁকে নির্বাচিত করার জন্য অ্যাসালসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি তাঁর দায়িত্ব পালনে সবার সার্বিক সহযোগীতা কামনা করে বলেন, এ বিজয় তার একার নয়, এ বিজয় সকল বাংলাদেশীর, অভিবাসী সমাজের। তিনি বলেন, অ্যাসাল তার হয়ে যেভাবে কাজ করেছে, তা অতুলনীয়। এজন্য অ্যাসাল’র প্রতি কৃতজ্ঞতার শেষ নেই। তিনি বলেন, আমি সবার প্রতিনিধি হয়ে সিনেটে ভূমিকা রাখবো।

অ্যাসাল’র প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট মাফ মিসবাহ উদ্দিন টেলিকনফারেন্সে মধ্যবর্তী নির্বাচনে অ্যাসাল’র আজীবন সদস্য শেখ রহমানকে সিনেট ডিস্ট্রিক্ট-ফাইভ থেকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করায় সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। নির্বাচনে শেখ রহমানকে সর্বাত্মকভাবে সহযোগিতা করার জন্য অ্যাসাল জর্জিয়া চ্যাপ্টারকেও তার কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি বলেন, শেখ রহমানের বিজয় মানে অ্যাসাল’র বিজয়। মাফ মিসবাহ ইমিগ্র্যান্টদের অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় মূলধারার রাজনীতিতে দক্ষিণ এশীয়দের অবস্থান আরো শক্তিশালী করতে সকলকে অ্যাসাল’র ছায়াতলে সমবেত হওয়ার আহ্বান জানান।
অ্যাসাল’র সেক্রেটারী এম করিম চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন, ইমিগ্যান্টদের অধিকার সুসংহত করতে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। আমেরিকার মূল্যবোধ সমুন্নত রাখা, ইমিগ্র্যান্ট কমিউনিটির অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় মূলধারায় আরো জোরালো অবস্থানে নিতে হবে এশিয়ানদের। কোন মানুষই যাতে বৈষম্যের শিকার না হন সে বিষয়েও সোচ্চার হতে হবে সকলকে। তিনি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মেক্সিকো সীমান্তে দেওয়াল নির্মাণ পদক্ষেপ সহ ইমিগ্র্যান্ট বিরোধী প্রদক্ষেপকে আমেরিকার মূল্যবোধ ও মানবাধিকার পরিপন্থী উল্লেখ করে বলেন, এজন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

জর্জিয়া স্টেটে নির্বাচিত অন্যান্য জনপ্রতিনিধিরা তাদের বক্তব্যে নিজেদেরকে বাংলাদেশিসহ দক্ষিণ এশীয়দের বন্ধু হিসেবে আখ্যায়িত করেন। তারা বলেন, বাংলাদেশীসহ দক্ষিণ এশীয় কমিউনিটি তথা অভিবাসীদের অধিকার রক্ষা এবং বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে সব সময় আন্তরিক চেষ্টা থাকবে আমাদের। তারা বাংলাদেশীদের প্রশংসা করে বলেন, বাংলাদেশী-আমেরিকানরা মূলধারায় গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠেছেন। মূলধারার রাজনীতিতে তাঁরা দ্রুত জায়গা করে নিচ্ছেন। তাদের সম্মানে এ আয়োজনের জন্য আয়োজক আ্যসাল’র প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান তারা।
অ্যাসাল জর্জিয়া চ্যাপ্টারের প্রেসিডেন্ট মোঃ আলী হোসেন প্রবাসী বাংলাদেশী সহ এই অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

শেয়ার করুন