ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন রংপুরকে হারালো সিলেট

মিজান আহমদ চৌধুরী, সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম থেকে : আগের দিনে নিজেদের মাটিতেঅসহায় ভাবে কুমিল্লার কাছে আত্মসমর্পন করা সিলেট সিক্সার্স বুধবার সিলেট পর্বের দ্বিতীয় দিনে টুর্নামেন্টের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন রংপুরকে ২৭ রানের ব্যবধানে হারিয়ে বর্তমান আসরে নিজেদের দ্বিতীয় জয়টি তুলে নেয়। ফলে একদিনের ব্যবধানে দারুন আত্মবিশ্বাসে ভরপুর দলকে দেখতে পেলো গ্যালারির ১৮ হাজার দর্শকেরা।

সিলেটের দেওয়া ১৮৮ রানের বিশাল জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে রংপুরের দরকার ছিলো অ্যালেক্স হেলস বা গেইলের ব্যাটিং তান্ডব। তবে শুরুতেই এই দুজন হতাশ করেন রংপুরের সমর্থকদের। দলীয় ১১ রানের মাথায় তিন ব্যাটটসম্যানকে হারায় তারা। মেহেদি মারুফ (৩), গেইল (৭) ও শূণ্য রানে ফিরেন হেলস। তবে সেখান থেকে ব্যাক ফায়ার করে টিম রংপুর। চতুর্থ উইকেটে রুশো ও মিথুনের জুটিটি দলকে সঠিক পথ দেখাচ্ছিলো। তারা দুজন মিলে ৮৯ রানের জুটি গড়েন। এরপর দৃশ্যপটে আসেন তাসকিন আহমদ। দুই সেট ব্যাটসম্যানকে তিনি প্যাভিলিয়নের রাস্তা দেখালে ম্যাচ সিলেটের দিকে চলে আসে। দলীয় ১০০ রানে তাসকিনের বলে রুশো ৩২ বলে ৫৮ রান করে ফিরলে ভাঙে রংপুরের সর্বোচ্চ রানের জুটিটি। মূলত এই জুটিটি শেষ হয়ে যাওয়ার সাথে সাথে রংপুরের ম্যাচ জয়ের আশাটা ও কমতে থাকে। রংপুরের দলীয় ১১৭ রানে তাসকিন যখন মিথুনকে ৩৫ রানে ফেরান তখন রংপুরের পরাজয় সময়ের ব্যাপার হয়ে যায়। শেষ দিকে অধিনায়ক মাশরাফির অপরাজিত ৩২ রান শুধু মাত্র পরাজয়ের ব্যবধান কমায়। ২০ ওভার খেলে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ১৬০ রানের বেশি করতে পারেনি রংপুর । ২৭ রানের পরাজয় বরণ করে দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মাঠ ছাড়েন।

সিলেটের হয়ে মেহেদী রানা ও তাসকিন দুটি এবং সোহেল তানভির ও সন্দ্বীপ লামিচানে একটি করে উইকেট লাভ করেন।

এর আগে বুধবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচটি শুরু হয় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রংপুর অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

টস হেরে নিজেদের মাটিতে ব্যাটিং করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা পায় সিলেট সিক্সার্স। আগের ম্যাচে মাত্র ৬৮ রানে অলআউট হওয়া দলটি এদিন ওপেনিং জুটি থেকেই তুলে ফেলে ৭৩ রান। এদিন ওপেনিংয়ে ওয়ার্নারকে ওয়ানডাইনে দিয়ে ওপেনিং করতে নামের লিটন দাস ও সাব্বির রহমান। সাব্বির ধীর গতিতে খেললেও লিটন শুরু থেকে উড়ন্ত ব্যাটিং করতে থাকেন । তার ব্যাট থেকে আসা চার-ছয়ে গ্যালারিতে স্বাগতিক দর্শকদেরকে মাতিয়ে রাখেন । মাত্র ২৯ বলে নিজের অর্ধশতক পূর্ণ করেন। সাব্বির ২০ বলে ২০ রান করে আউট হলে ভাঙে ৭৩ রানের ওপেনিং জুটি। তবে সাব্বির সাঝঘরে ফিরলেও দ্বিতীয় উইকেট জুটিতেওয়ার্নারকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন লিটন। দলীয় ১২৯ রানের মাথায় ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটের শিকার হয়ে ইনিংসের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক লিটন দাস। তিনি ৪৩ বলে ৭০ রানের দৃষ্টিনন্দন ইনিংস দর্শকদেরকে উপহার দেন। সিক্সার্সের অধিনায়ক ওয়ার্নার ও এদিন কম যাননি। ব্যাটিংয়ে দর্শকদেরকে বিনোদন দিতে ১৯তম ওভারে নিজে বাম হাতি ব্যাটসম্যান হয়েও ডান হাতে ব্যাটিং করেন। প্রতিপক্ষ দলের ফিল্ডারদের সমস্যায় ফেলতে মূলত তিনি একাজটি করেন। বার বার তাদের ফিল্ডিং পজিশন বদল করতে হয় । গেইলের করা ঔ ওভারে শেষ তিন বলে ওয়ার্নার ১৪ রান সংগ্রহ করেন। প্রথম বলে ছয় দিয়ে শুরু করেন এবং বাকি দুটি বল ৪ হাঁকান। অবম্য পরের ওবারেই আবার বাম হাতে ব্যাটিং করেন।শেষ পর্যন্ত তিনি ৩৬ বলে ৬১ রানের একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন। শেষ দিকে অধিনায়কের সাথে রান উৎসবে যোগ দেন নিকোলাস পুরান (১৬ বলে ২৬ রানে)। ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ১৮৭ রান সংগ্রহ করে সিলেট সিক্সার্স।

রংপুরে হয়ে শফিউল ইসলাম তিনটি, বেনি হাওয়েল একটি করে উইকেট লাভ করেন।

দুই দলে যারা খেলছেন:
রংপুর: মাশরাফি বিন মুর্তজা, মোহাম্মদ মিঠুন, মেহেদী মারুফ, সোহাগ গাজী, ফরহাদ রেজা, শফিউল ইসলাম, নাহিদুল ইসলাম, ক্রিস গেইল, অ্যালেক্স হেলস, বেনি হাওয়েল, রাইলি রুশো

সিলেট: ডেভিড ওয়ার্নার, সোহেল তানভীর, সন্দ্বীপ লামিচানে, নিকোলাস পুরান, অলক কাপালি, লিটন দাস, সাব্বির রহমান, তাসকিন আহমেদ, আফিফ হোসেন, মেহেদী হাসান রানা, জাকির আলী অনীক

 

শেয়ার করুন