জাফলংয়ে ব্যবসায়ির জমি দখল করে পাথর লুটপাটের অভিযোগ

সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার জাফলংয়ে ব্যবসায়ীর জমি দখল ও মজুদ রাখা পাথর লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। আদালতে মামলা করেও তিনি প্রশাসনের সহযোগিতা পাচ্ছেন না। শনিবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন গোয়াইনঘাটের জাফলং ইউনিয়নের কান্দুবস্তীর ব্যবসায়ী মো. আবু তাহের।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত ১৮ জানুয়ারি আমি, আমার পরিবার ও আমার ব্যবসায়িক পার্টনারের ওপর সন্ত্রাসী হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। সন্ত্রাসীরা আমাদের জমি দখল করে বেআইনিভাবে অবস্থান করছে। এ ঘটনায় আমি মামলা দায়ের করেছি। কিন্তু পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। এতে আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

নিজেকে পাথর ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়ে আবু তাহের বলেন, কান্দুবস্তির প্রবাসী দিলোয়ার বিদেশ যাওয়ার সময় তার কিছু জমি দেখাশোনার দায়িত্ব আমাকে দেন। আমি দিলোয়ারের পরিবারের লোকজনকে সাথে নিয়ে জমি দেখভাল করে আসছি। পাশাপাশি জমিতে পাথর মজুদ রেখে বেচাকেনা করি।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার দিন রাত ৮টার দিকে জাফলংয়ের হেলাল কিবরিয়া ও পূর্ণানগর গ্রামের নাজিম উদ্দিনের নেতৃত্বে ৭টি মোটরসাইকেলযোগে ১০ থেকে ১২ জন আমাদের পাথর ক্রয়-বিক্রয়ের সাইট ও বাড়িতে হামলা করে। ধারালো অস্ত্র দিয়ে তারা আমাকে, আমার পরিবার এবং ব্যবসায়ীক পার্টনার নুরুল আমিনকে আহত করে। ঘটনাস্থলে থাকা ১০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

চিকিৎসা নেওয়ার পর পুলিশকে অবগত করেন আবু তাহের। কিন্তু পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ তার। পরবর্তীতে তার ব্যবসায়িক পার্টনার নুরুল আমিন বাদি হয়ে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩য় আদালতে একটি মামলা (নম্বর-১৬/২০১৯) দায়ের করেন।

আবু তাহের বলেন, তারপরও পুলিশ নিষ্ক্রিয় রয়েছে। এই সুযোগে আসামিরা প্রকাশ্যে আমাদের জমি দখল করায় লিপ্ত রয়েছে। পাশাপাশি আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মামলার বাদি ও তাহেরের ব্যবসায়ী পার্টনার নূরুল আমিন, হবিল মিয়া, রাজ্জাক, সাজনা বেগম ও সেলিনা আক্তার প্রমুখ।

শেয়ার করুন