চ্যাম্পিয়ন মাশরাফিদের হারাল চিটাগং চিটাগং ভাইকিংস

স্পোর্টস রিপোর্টার : বিপিএলের ৬ষ্ঠ আসরের উদ্বোধনী ম্যাচ জিতে শুভ সূচনা করল চিটাগং ভাইকিংস। লো স্কোরিং ম্যাচ হলেও প্রতিরোধ জমিয়ে তুলেছিল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স। শেষ পর্যন্ত ১৯.১ ওভারে ৩ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় মুশফিকুর রহিমের দল।

রংপুর রাইডার্সের দেওয়া ৯৯ রানের টার্গেটের জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে চিটাগংয়ের দলীয় ১৫ রানে ক্যামেরন ডেলপোর্টকে অ্যালেক্স হেলসের তালুবন্দি করেন রংপুর অধিনায়ক মাশরাফি। ৫ বছর পর বিপিএলে প্রত্যাবর্তন সুখের হয়নি আশরাফুলের। প্রিয় পজিশন  ৩ নম্বরে নেমে দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে মাত্র মাত্র ৩ রান করে শফিউলের বলে অ্যালেক্স হেলসের তালুবন্দি হন। অপর ওপেনার মোহাম্মদ শেহজাদ (২৭) শিকার হন হাওয়েলের।

এরপর ১৭ রানের মাঝে দ্রুত ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে চিটাগং। রান-আউট হয়ে যান সিকান্দার রাজা (৩)। মোসাদ্দেক (২) শিকার হন ফরহাদ রেজার। মাশরাফিকে ডাউন দ্য উইকেটে এসে মারতে গিয়ে মিডলস্টাম্প উড়ে যায় নাঈম হাসানের (১০)। একপ্রান্ত অবিচল থেকে দলকে টানতে থাকেন অধিনায়ক মুশফিক। জয়ের কাছাকাছি গিয়ে নাজমুল অপুর ঘূর্ণিতে থামে তার ৩১ বলে ২৫ রানের ইনিংস। ম্যাচের শেষটা আরও নাটকীয়। কম পুঁজি নিয়েও দারুণ ফাইট দিচ্ছিল রংপুর। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ৫ বল এবং ৩ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় চিটাগং।

এর আগে উদ্বোধনী ম্যাচে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯৮ রানে অল-আউট হয় রংপুর রাইডার্স। চিটাগং বোলারদের তোপের মুখে ১৪ রানেই হারায় ৪ উইকেট। ধ্বংসের সূচনা করেছেন প্রোটিয়া পেসার রবি ফ্র্যাইলিং। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে অ্যালেক্স হেলসকে (০) দিয়ে শুরু করেন তিনি। একে একে তুলে নেন মোহাম্মদ মিথুন (০) এবং মেহেদী মারুফকে (১)। তার উদ্বোধনী সঙ্গী আবু জায়েদ শিকার করেছেন রাইলি রুশোকে (৭)। নাঈম হাসানের ঘূর্ণিতে হাওয়েল আবু (৭) জায়েদের হতে ধরা পড়লে রংপুরের পঞ্চম উইকেটের পতন ঘটে । দলীয় ৩১ রানে সেই নাঈমের বলেই ফিরেন ফরহাদ রেজা (৩)।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও আজ ঝড় তুলতে পারেননি। খালেদ আহমেদের বলে ক্যাচ দিয়েছেন ২ রানে। একপ্রান্ত আগলে লড়াই করে গেছেন রবি বোপারা। ইনিংসের অর্ধেক রানই তিনি করেছেন। আবু জায়েদের শিকার হওয়ার আগে খেলেন ৪৭ বলে ৩ চার ২ ছক্কায় ৪৪ রানের ইনিংস। রাইডার্স। সোহাগ গাজীও ২১ রানের কার্যকরী ইনিংস খেলেন। তাদের ব্যাটেই নির্ধারিত ২০ ওভারে অল-আউট হওয়ার আগে ৯৮ রান তুলতে পারে রংপুর বল হাতে ফ্র্যাইলিং নিয়েছেন ৪ উইকেট। আবু জায়েদ এবং নাঈম ২টি করে এবং খালেদ আহমেদ ১ উইকেট নিয়েছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

রংপুর রাইডার্স: ২০ ওভারে ৯৮ (মারুফ ১, হেলস ০, মিঠুন ০, রুশো ৭, বোপারা ৪৪, হাওয়েল ৮, ফরহাদ ৩, মাশরাফি ২, সোহাগ ২১, নাজমুল ৪, শফিউল ১*; আবু জায়েদ ৪-০-৩০-২, ফ্রাইলিঙ্ক ৪-০-১৪-৪, খালেদ ৪-০-১৫-১, নাঈম ৪-০-১০-২, সানজামুল ৪-১-২৭-০)।

চিটাগং ভাইকিংস: ১৯.১ ওভারে ১০১/৭ (শাহজাদ ২৭, দেলপোর্ত ৮, আশরাফুল ৩, মুশফিক ২৫, রাজা ৩, মোসাদ্দেক ২, নাঈম ১০, ফ্রাইলিঙ্ক ১২*, সানজামুল ৭*; মাশরাফি ৪-০-২৪-২, সোহাগ ৩-০-১৮-০, শফিউল ২.১-০-১৯-১, নাজমুল ৪-০-১৭-১, হাওয়েল ৪-০-১৩-১, ফরহাদ ২-০-১০-১)।

ফল: চিটাগং ভাইকিংস ৩ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: রবি ফ্রাইলিঙ্ক

শেয়ার করুন