বাংলাদেশকে কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী

সিলেটের সকাল ডেস্ক:: আসন্ন নির্বাচনে জনগণের ভোটে বিজয়ী হয়ে আওয়ামী লীগ আবারও সরকার গঠন করবে বালে আশাবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা উন্নয়নের যে গতিধারর সূচনা করেছি, তাতে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। জাতির পিতা সাত মার্চের ভাষণে বলেছিলেন, কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না। আমি বিশ্বাস করি, বাংলাদেশকে আর কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না।

বুধবার (২১ নভেম্বর) বিকেলে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে সেনাকুঞ্জে তিন বাহিনীর কর্মকর্তাদের বৈকালিক সংবর্ধনায় অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, অনেক কিছু মোকাবেলা করে জনগণের সহযোগিতা নিয়ে জনগণের ভোটে আবার নির্বাচিত হয়ে সরকার গঠন করি। যার ফলে আজ বাংলাদেশের মানুষের জীবন পরিবর্তন আনতে সক্ষম হয়েছি। এখন ক্ষমতায় যেতে না পারলেও তার আফসোস থাকবে না, কারণ দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নেওয়ার ভিত ইতোমধ্যে তৈরি হয়েছে।

টানা ১০ বছর বাংলাদেশের সরকার প্রধানের দায়িত্বে থেকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় কাজ করেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা ২০২০ সালে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করব, ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তি উদযাপন করব। ইনশাল্লাহ, বাংলাদেশ ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত দেশ হিসেবেই গড়ে তুলতে আমরা সক্ষম। আগামী প্রজন্মের জন্য উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়াই আমার লক্ষ্য।

মিয়ানমারে জাতিগত নির্যাতন-নিপীড়নের শিকার সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ১১ লাখ মানুষকে বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়ার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেক উন্নত দেশ যেখানে শরণার্থীদের আশ্রয় দিতে হিমশিম খায়, সেখানে অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে আমরা তাদের আশ্রয় দিয়েছি। আমরা যুদ্ধ করবো না। কিন্তু কেউ আক্রমণ করলে ছেড়ে দিবো না। যতক্ষণ আমাদের শ্বাস আছে, আমরা প্রতিরোধ করব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা প্রতিটি বাহিনীর জন্য আধুনিক অস্ত্র তৈরি করে তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা থেকে শুরু করে সব পদক্ষেপই আমি নিয়েছি। আমরা উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে মর্যাদা পেয়েছি। সেই মর্যাদা অক্ষুণ রেখে আমাদের চলতে হবে। আমাদের সামনে আরো অনেক যাত্রা পথ বাকি রয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন জয়ের প্রত্যয় জানিয়ে শেখা হাসিনা বলেন, সামনের নির্বাচনে যদি জনগণ ভোট দেয়, যদি চায় দেশের সেবা করি, হয়তো আল্লাহর রহমতে আবার ফিরে আসব, আপনাদের সঙ্গে এখানে দেখা হবে। আর যদি না পারি, আমার কোনো আপসোস থাকবে না। কারণ উন্নয়নের যে গতিপথ শুরু করেছি, বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে।

শেয়ার করুন