‘প্রতিটি পরিবারই ভবিষ্যৎ ডায়াবেটিসের ঝুঁকিতে রয়েছে’

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: বাংলাদেশে ডায়াবেটিস রোগী রয়েছে প্রায় ৯০ লাখ, বছরে বাড়ছে আরও ১ লাখ রোগী। বিশেষজ্ঞদের মতে ডায়াবেটিস প্রতিরোধে এখনই কার্যকর উদ্যোগ না নিলে বিশ্বে ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে ৫৫ কোটি ছাড়িয়ে যাবে।-এমনটি জানিয়েছেন অধ্যাপক ডা. এম. এ. আহবাব।

বুধবার দুপুরে সিলেট ডায়াবেটিক সমিতির সভাকক্ষে সিলেট ডায়াবেটিক হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ ললিত মোহন নাথের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনায় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ তথ্য জানান। ‘বিশ্ব ডায়াবেটিক দিবস’ উপলক্ষে এ সভার আয়োজন করা হয়।।

এবারের প্রতিপাদ্য- “ডায়াবেটিস প্রতিটি পরিবারের উদ্বেগ”। এ প্রতিপ্রাদ্য থেকে এটা স্পষ্ট বুঝা যায় যে পরিবর্তিত জীবনযাপন ও খাদ্যাভাসের কারণে প্রতিটি পরিবারই রয়েছে ভবিষ্যৎ ডায়াবেটিসের ঝুকিতে। তা ছাড়া যে সব পরিবারে ডায়াবেটিস আছে তাদের ডায়াবেটিস ব্যবস্থাপনা নিয়ে উদ্বেগে কাটাতে হয় বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি আরোও বলেন গর্ভবতী মায়েদের জন্য ডায়াবেটিস খুবই ঝুকিপূর্ন, “গর্ভবতী মায়ের অপুষ্টিই ডায়াবেটিস রোগের অন্যতম কারণ, তাই গর্ভবতী মায়েদের পুষ্টিকর খবার খাওয়ার পরামর্শ প্রদান করেন।

সমিতির সাধারণ সম্পাদক লোকমান আহমদ বলেন সুশৃঙ্খল জীবনযাপন করলে রোগী নিজেই ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। সব বয়সের মানুষই আজ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছে। প্রতিবছরই দ্বিগুণহারে বাড়ছে নতুন নতুন ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা। সচেতনতার অভাবে অনেকেই এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। গর্ভকালীন মা যদি অপুষ্টিতে ভোগে তাহলে জন্মগ্রহণকৃত শিশুও অপুষ্ঠিতে ভোগবে তাই গর্ভবতী মায়েদের প্রতি বিশেষ যতœবান হয়ে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে ডায়াবেটিস এর হাত থেকে রক্ষা করতে হবে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সমিতির কার্যকরি কমিটির সদস্য আফতাব চৌধুরী সাংবাদিক, আব্দুস সামাদ নজরুল, প্রকৌশলী মোঃ আইয়ুব, হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট ডাঃ এ.জেড. মাহবুব আহমদ প্রমূখ। বক্তারা ডায়াবেটিস রোগ ও এর প্রতিকার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

আলোচনা সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন অত্র হাসপাতালের ল্যাব ইনচার্জ মালেক খান।

ডায়াবেটিক দিবসের কর্মসূচী হিসেবে সকাল ১০ টায় হাসপাতাল প্রাঙ্গণ থেকে সিলেট ডায়াবেটিক হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. এ.জেড. মাহবুব আহমদ নেতৃত্বে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে শহরের অন্যতম সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে হাসপাতাল প্রাঙ্গণে শেষ হয়। সমিতির যুগ্ম-কোষাধ্যক্ষ শিবব্রত ভৌমিক চন্দন ও সদস্য সাংবাদিক আফতাব চৌধুরী এসময়ে উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও সকাল ৯ টা থেকে বেলা ১২ টা পর্যন্ত হাসপাতালে আগত রোগীদের বিনামূল্যে ডায়াবেটিস সনাক্তকরণ করা হয়।

শেয়ার করুন