ফিলিপাইনের মুখোমুখি স্বাগতিক বাংলাদেশ, দর্শকদের ঢল

মিজান আহমদ চৌধুরী, সিলেট জেলা স্টেডিয়াম থেকে : বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টে গ্রুপ সেরার লড়াইয়ে ফিলিপাইনের মুখোমুখি হয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। সিলেট জেলা স্টেডিযামে ম্যাচটি শুরু হয়েছে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। এদিকে স্বাগতিক প্লেয়ারদেরকে অনুপ্রেরণা দিতে দর্শকেরা প্লে-কার্ড,ব্যানার ও ফেস্টুন নিয়ে এসেছেন।অনেকের হাতে দেখা গেছে বাংলাদেশের পতাকা । তাদের প্রত্যাশা একটাই শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ জিতে যেন সিলেট পর্ব শেষ করে। কারণ সেমি নিশ্চিত করা বাংলাদেশের শেষ ম্যাচ এটি সিলেটের মাঠিতে।
এদিকে এ ম্যাচে বাংলাদেশ একাদশে নেই বাংলাদেশের বিগ প্লেয়ার জামাল ভ’ঁইয়া ও ওয়ালি ফায়সাল।
ইতোমধ্যে লাওসের বিপক্ষে জয় নিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলেছে প্রতিদ্বন্দ্বী দল দুটি। তাই আপাতদৃষ্টিতে গুরুত্বহীন এই ম্যাচ এখন হয়ে উঠেছে সম্মান অর্জনের।
গ্রুপের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক বাংলাদেশ ১-০ গোলে লাওসকে হারালেও ফিলিপাইন তাদের হারিয়েছে ৩-১ গোলে। ফলে আজকের ম্যাচ ড্র হলেও গোল ব্যবধানে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে সেমিফাইনালে খেলবে ফিলিপাইন। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে হলে এ ম্যাচে অবশ্যই জয় পেতে হবে স্বাগতিকদের।
ম্যাচের আগে অনেকটাই নির্ভার টিম বাংলাদেশ। কিন্তু তাদের জন্য কিছুটা চিন্তার বিষয় ইনজুরি। লাওসের বিপক্ষে উদ্বোধনী ম্যাচেই মাসল পুল করেছিল রক্ষণভাগের মূল ভরসা অভিজ্ঞ ওয়ালী ফয়সালের। প্লে-মেকার অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াও নেই স্বস্তিতে। ইনজুরি আক্রমণ করেছে তাকেও।

যদিও বাংলাদেশের লক্ষ্য ফিলিপাইনকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া। তবে সে কাজটি যে অনেক কঠিন সেটা ভালো করেই জানেন অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া। দুই দল এর আগে দুই বার মুখোমুখি হয়েছিল। একটি করে জয় আছে উভয় দলের। তবে সর্বশেষ ৭ বছর আগে বাংলাদেশকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল ফিলিপাইন। এরপর বাংলাদেশের র্যাংকিংয়ে যতটা অবনমন হয়েছে ফিলিপাইন ঠিক ততটাই উন্নতি করেছে। র্যাংকিংয়ে ফিলিপাইন রয়েছে ১১৪ নম্বরে। আর বাংলাদেশের অবস্থান ১৯৩তম।
শক্তির বিচারেও এগিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দলটি। শিষ্যদের রক্ষণভাগ সামলানোর উপর বেশি জোর দিয়েছেন বাংলাদেশের ব্রিটিশ কোচ জেমি ডে । তিনি বলেন, ‘ফিলিপাইনের প্রথম ম্যাচে আমি দেখেছি ওদের আক্রমণ ভাগ ভালো। কিছু ভালো ফরোয়ার্ড আছে এবং তারা আমাদের বিপক্ষে ভালো করার জন্য প্রস্তুত। অবশ্যই ম্যাচটা আমাদের ডিফেন্ডারদের জন্য কঠিন পরীক্ষা। দেখা যাক, ডিফেন্ডাররা পরিস্থিতি কিভাবে সামাল দেয়।’

 

শেয়ার করুন