ছয় দিনব্যাপী ‘সিলেট বইমেলা’র উদ্বোধন

সিলেটের সকাল রিপোর্ট:ছয় দিনব্যাপী ‘সিলেট বইমেলা’র উদ্বোধনডেস্ক রিপোর্ট ॥ সিলেট নগরের রিকাবিবাজার এলাকার জেলা স্টেডিয়ামের মোহাম্মদ আলী জিমনেসিয়ামে ছয় দিনব্যাপী ‘সিলেট বইমেলা’র উদ্বোধন হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে চারটায় প্রথমা প্রকাশন ও বেঙ্গল পাবলিকেশন্সের যৌথ আয়োজনে এ মেলা শুরু হয়। উদ্বোধনী দিনেই লেখক-পাঠকদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে মেলাস্থল।উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উদীচী সিলেটের সভাপতি ও কবি এ কে শেরাম। অতিথির বক্তব্য দেন সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহিউদ্দিন আহমদ সেলিম, সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক মুকির হোসেন চৌধুরী, গল্পকার জামান মাহবুব, সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের সভাপতি মিশফাক আহমদ চৌধুরী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রীয় সদস্য শামসুল আলম সেলিম, সিলেটের সাধারণ সম্পাদক গৌতম চক্রবর্তী, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম ও সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক প্রণবকান্তি দেব। পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের সাধারণ সম্পাদক রজতকান্তি গুপ্ত। শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য দেন প্রথমা প্রকাশনের উপ-ব্যবস্থাপক মো. জাকির হোসেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যালয় সচিব বিপুল চন্দ্র তালুকদার, বাউল বশিরউদ্দিন সরকার, কবি আবিদ ফায়সাল, মালেকুল হক, জিবলু রহমান, বিমান তালুকদার, লেখক মোহাম্মদ আবদুল হাই হাদী, জসীম আল ফাহিম, মাইস্লাম রাজেশ, নজরুল ইসলাম রানা ও জাহাঙ্গীর আহমদ, শিল্পী ইকবাল সাঁই, সাংবাদিক মুনশী ইকবাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সিলেট বইমেলা আয়োজনের সমন্বয়ক ও প্রথম আলোর সিলেট প্রতিনিধি সুমনকুমার দাশও মেলায় উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, রুচিশীল পাঠক তৈরিতে এই বইমেলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এখানে নির্বাচিত ও ভালো বই পাওয়া যাচ্ছে। সিলেটের মানুষের পাঠরুচি তৈরিতেও এই মেলা সহায়ক হবে। তরুণ প্রজন্মের মধ্যে পাঠাভ্যাস বাড়াতে পারলে জাতি হিসেবে আমরা ক্রমশই এগোতে পারব। টেলিভিশন নয়, একমাত্র বইই দিতে পারে জ্ঞানের দরজা খুলে দিতে। তাই বাচ্চাদের বইপ্রেমী হিসেবে গড়ে তুলতে অভিভাবকদেরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। আয়োজকেরা জানান, মেলা আয়োজনে সহযোগিতা করছে প্রথম আলোর সিলেট বন্ধুসভার সদস্যরা। মেলা চলবে আগামী ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত। প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত (ছুটির দিনসহ) মেলা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। আসন্ন একুশে বইমেলা উপলক্ষে নতুন প্রকাশিত বই ছাড়াও মেলায় দেশি-বিদেশি বই বিশেষ ছাড়ে পাওয়া যাচ্ছে। মেলায় প্রথমার বই ৩০ থেকে ৬০ শতাংশ এবং বেঙ্গল পাবলিকেশন্সের বই ২৫ থেকে ৫০ শতাংশ ছাড়ে কেনা যাবে। এ ছাড়া অন্যান্য প্রকাশনীর বই ২৫ শতাংশ ছাড়ে বিক্রি হবে। পাশাপাশি ভারতীয় বই ১ রুপি=১.৫ টাকা থেকে ১.৮ টাকায় পাওয়া যাবে। প্রথমা প্রকাশনের উপ-ব্যবস্থাপক মো. জাকির হোসেন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জানান, মেলায় বাংলাদেশ ও ভারতের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠিত প্রকাশনা সংস্থার সদ্য প্রকাশিত ও পুরোনো বই পাওয়া যাবে। এ ছাড়া ইংরেজি ভাষায় রচিত অন্যান্য দেশের ফিকশন ও ননফিকশন বইও পাওয়া যাবে। মেলায় কবিতা, ছড়া, গল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ, নিবন্ধ, আত্মজীবনী, দর্শন, ধর্ম, রাজনীতি, বিজ্ঞান, গণিত, সংস্কৃতি, সংকলন, গবেষণা, অনুবাদ, চিরায়ত সাহিত্য, রচনাসমগ্র, শিশু ও কিশোর উপযোগী রচনাসহ সৃজনশীল ও মননশীল উভয়ধারার বই পাওয়া যাবে।

শেয়ার করুন