সড়কে শৃঙ্খলা আসবে কবে?

মো. জাহাানুর ইসলাম

বিশৃঙ্খলাতে কোনো আশীর্বাদ নেই, রয়েছে শুধু অপকার। বিশৃঙ্খলা মানে হলো হ-য-ব-র-ল অবস্থা। বাংলাদেশের সড়ক-মহাসড়কে এই হ-য-ব-র-ল দীর্ঘদিন ধরে বিরাজমান। সরকার কোনোভাবেই এই হ-য-ব-র-ল অবস্থা নিয়ন্ত্রণ করতে পারছিলো না। ফলশ্রুতিতে সড়ক-মহাসড়কে প্রতিনিয়তই ঘটতেছিল নানা ধরনের দুর্ঘটনা। এখন যে দুর্ঘটনা ঘটছে না তাও নয়। তবে মাঝে কয়েকদিন শিশু, কিশোর-কিশোরীদের নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের কারণে রাস্তায় শৃঙ্খলা এসেছিল। কমে গিয়েছিল সড়ক দুর্ঘটনার পরিমাণও কয়েকগুণ। ঈদযাত্রায় সড়কে মৃত্যুর মিছিল এবং সাম্প্রতিক সড়ক-নৈরাজ্য দেখে মনে হচ্ছে, রাজপথে নেমে শিক্ষার্থীরা যে চোখ খুলে দিয়েছিল, তা আবার বন্ধ হয়ে গেছে।

সড়ক-মহাসড়কে দীর্ঘদিন থেকেই এই বিশৃঙ্খল অবস্থা বিদ্যমান। সড়কে শৃঙ্খলা যেন ফিরছেই না। আর ফিরবেই বা কিভাবে? সকল ধরনের যানবাহন তো চলছে নিজেদের খেয়াল খুশিমতো। নিয়মনীতি মেনে চলার নেই কোনো বালাই। রাস্তায় যেমন যত্রতত্র যানবাহন থামছে, পরিবহন শ্রমিকরাও তেমনি নিজেদের ইচ্ছামতো যাত্রী উঠাচ্ছে, যাত্রী নামাচ্ছে। তাদের এসব অবৈধ কাজে বাধা দেওয়ার যেন কেউ নেই। সড়ক-মহাসড়ক যেন পরিবহন শ্রমিকদের নিজস্ব সম্পত্তি। সড়কে তারাই সর্বসেরা। শুধু বড় বড় যানবাহনই নয়, ছোট ছোট যানবাহনও রাস্তায় বিশৃঙ্খলতা সৃষ্টি করছে। হেলমেট ছাড়া মুঠোফোন কানে অনেকে যেমন মোটরসাইকেল চালাচ্ছে, তেমনি নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে মহাসড়কে চলছে তিন চাকার গাড়ি। আর উল্টো পথে গাড়ি চলা যেন এখন একটি স্বাভাবিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। রিকশা, ভ্যান, মোটরসাইকেল থেকে শুরু করে রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার গাড়িও যেন বাদ যায় না এ ক্ষেত্রে। শুধু যে যানবাহনই সড়কে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে তা নয়। সাধারণ পথযাত্রীরাও সড়কে বিশৃঙ্খলতার দায় কোনোভাবেই এড়াতে পারে না। কেননা অধিকাংশ পথচারীরাও ট্রাফিক আইন মেনে চলে না। তারা নিজেদের খেয়ালখুশি মতো রাস্তা পারাপার হয়। রাস্তা পারাপারে জেব্রা ক্রোসিং ব্যবহার করে না। ব্যবহার করতে চায় না ওভারব্রিজ ও আন্ডারপাসও। অনেকে সময় বাঁচানোর জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তার মাঝখানে দেওয়া কাঁটাতারের বেড়া ও বিভাজনও টপকে রাস্তা পারাপার হয়। আর এসব কারণেই সড়ক-মহাসড়কে সৃষ্টি হচ্ছে নানা বিশৃঙ্খলা। এই বিশৃঙ্খলা রোধে আমাদের সবাইকে সোচ্চার হতে হবে।

নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে সবার মাঝে যেমন সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে, তেমনি নিশ্চিত করতে হবে আইনের অনুশাসন। সবাইকে আইন মেনে চলতে বাধ্য করতে হবে। কাউকে কোনো ধরনের ছাড় দেওয়া যাবে না। আইন অমান্যকারী ব্যক্তি যতই প্রভাবশালী হোক না কেন তাকে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। আমরা সাধারণ জনগণ মনে করি, সড়কে বিশৃঙ্খলতা প্রতিরোধে সরকার যদি একটু কঠোর হয়, তাহলে খুব দ্রুতই সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে আসবে। আশা করি, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

লেখক:শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

সূত্র: ইত্তেফাক

শেয়ার করুন