সিলেট-ঢাকা রুটে বিমানের ফ্লাইট আরো বাড়ানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবের

সেমিনারে বক্তব্য রাখছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো: নজিবুর রহমান

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ॥ সিলেট-ঢাকা রুটে বিমানের ফ্লাইট আরো বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান। তিনি বলেন, সিলেট বাংলাদেশের অর্থনৈতিক রাজধানী। এখানে পর্যটনের অপার সম্ভাবনা রয়েছে। এই সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে এই রুটে বিমানের ফ্লাইট আরো বাড়ানোর পাশাপাশি পর্যটন কর্পোরেশনের একটি অফিসও স্থাপন করতে হবে।
রবিবার সিলেট চেম্বারের কনফারেন্স হলে আয়োজিত সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। হাই-টেক পার্ক সিলেট (সিলেট ইলেকট্রনিক্স সিটি)-তে বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি যৌথভাবে এ সেমিনারের আয়োজন করে। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমদ এমপি’র সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে আরো বক্তব্য রাখেন-সিলেট সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব) হোসনে আরা বেগম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক মো: সালাহ উদ্দিন, সিলেটের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় কমিশনার মৃণাল কান্তি দেব এবং সিলেট চেম্বার সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ।
প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান তার বক্তব্যে বলেন, বিমান কর্তৃপক্ষের সাথে সোমবার তাঁর নির্ধারিত বৈঠক রয়েছে। এই বৈঠকে সিলেট-ঢাকা আরো ফ্লাইট চালুর ব্যাপারে আলোচনা হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে চান। একনেক বৈঠকে শিগগিরই বাংলাদেশ ডেল্টা প্লান পাস হবে। সারাবিশ্বে এখন চতুর্থ ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিভ্যুলিউশন চলছে-এই মন্তব্য করে তিনি বলেন, এজন্য মানব সম্পদ উন্নয়ন সবচেয়ে বেশী গুরুত্বপূর্ণ। মুখ্যসচিব প্রকল্পের কাজ সময়মতো শেষ করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।
প্রসঙ্গ, সিলেটের কোম্পানীগঞ্জের বর্ণি এলাকায় ১৮৭ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে সিলেট ইলেকট্রনিক্স সিটি। এরই মধ্যে প্রকল্পের শতকরা ৬০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে বলে জানান প্রকল্প পরিচালক ব্যারিস্টার মো: গোলাম সরওয়ার ভূঁইয়া।

শেয়ার করুন