শেখ হাসিনার অধীনেই একাদশ নির্বাচন : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: আগামী একাদশ নির্বাচন শেখ হাসিনার অধীনেই হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী ও ১৪ দলের সমন্বয়ক মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে আর কখনো নির্বাচন এদেশে হবে না। আগামী একাদশ নির্বাচন শেখ হাসিনার অধীনেই হবে।’

মঙ্গলবার বিকেলে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স উদ্বোধন শেষে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

জাতীয় সংসদের হুইপ আলহাজ মো. শাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে সমাবেশে তিনি আরো বলেন, ‘বিএনপি যদি নির্বাচনের মাঠে না আসে তাহলে খালি মাঠেই গোল দেবে আওয়ামী লীগ। নির্বাচন কমিশন রেফারির ভূমিকা পালন করবে। মাঠের খেলায় শেখ হাসিনা গোল মিস করবে না। বিএনপি আগের বার ট্রেন মিস করে আম ও ছালা দুটোই হারিয়েছে। এবার আশা করব মাঠে এসে খেলবে। জনগণের রায় যা হবে আমরা মেনে নেব।

মন্ত্রী বলেন, বিএনপি যুদ্ধাপরাধী ও বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে নিয়ে ঘুরেছে। বিচারের নামে প্রহসন করেছে তারা। কিন্তু আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে এসব খুনি ও অপরাধীদের বিচার করেছে।

তিনি বিএনপি-জামায়াতকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের জ্বালাও-পোড়াও করলে আইন-শৃংখলা বাহিনী আপনাদের প্রতিহত করবে। ষড়যন্ত্র করে অন্যভাবে ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন দেখবেন না। নির্বাচন প্রকাশ্যে হবে, সাংবাদিকদের ক্যামেরা সব দেখবে। ভয় পাবেন না। মাঠে আসেন। মাঠের খেলায় কেউ হারবে কেউ জিতবে, এটাই নিয়ম।

সমাবেশে অতিথি হিসাবে উপস্থিত মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মতিন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মিছবাউর রহমান, জুড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান গুলশান আরা মিলি, মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র ফজলুর রহমান, জুড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক বদরুল হোসেন প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক হাসেম খান, জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহ জালাল, ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন বিরেন্দ্র ভৌমিক, জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) অসীম কুমার বণিকসহ সরকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা।

পরে বিকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম এমপি বড়লেখায়ও ৩১ শয্যা থেকে সম্প্রসারণকৃত ৫০ শয্যার নবনির্মিত হাসপাতালের উদ্বোধন করেন। একই অবস্থায় এ ৫০ শয্যার এ হাসপাতলেও লোকবল না থাকায় ৩১ শয্যার লোকবল দিয়েই কর্তৃপক্ষকে হাসপাতালটি চালিয়ে নিতে হবে।

শেয়ার করুন