বিশ্বনাথে অজ্ঞাত কিশোরীর লাশ উদ্ধার নিয়ে রহস্য

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি ॥ বিশ্বনাথে অজ্ঞাতনামা কিশোরীর হাত বাঁধা ও গলায় উড়না পেছানো লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত ওই তরুণীর বয়স আনুমানিক ১৫/১৬ বছর হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সোমবার রাত ৯ টায় উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের পাঠাকইন গ্রামের তবারক আলীর বাড়ীর সামনে পাঠাকইন-রামচন্দ্রপুর রাস্তার পার্শ্বে এই লাশ দেখতে পান স্থানীয় লোকজন। এ সময় স্থানীয় লোকজন থানা পুলিশকে খবর দিলে তাৎক্ষণিক পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান। এরপর সিলেট থেকে সিআইডি’র ক্রাইম সিন ইউনিটের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।
স্থানীয় ইউপি সদস্য জামাল মিয়া জানান, পাঠাকইন গ্রামের তবারক আলীর বাড়ির সামনের নির্জন রাস্তায় গতকাল সোমবার সন্ধ্যার পর কে কারা ওই অজ্ঞাতনা কিশোরীর হাত বাঁধা ও গলায় উড়না পেছানো লাশ ফেলে যায়। রাত ৯টায় গ্রামের দুটি শিশু রাস্তা দিয়ে যাওয়ার পথে লাশটি দেখতে পেয়ে তারা দৌড়ে গিয়ে তবারক আলীকে বিষয়টি জানায়। এসময় তবারক আলী ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে (ইউপি সদস্য) বিষয়টি অবহিত করেন। খবর পেয়ে সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ওসমানীনগর সার্কেল) সাইফুল ইসলাম, বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ শামসুদ্দোহা পিপিএম ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ দুলাল আকন্দ সহ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছেন। এরপর আলামত সংগ্রহের ও পুলিশকে সহযোগীতা করতে সিলেট থেকে সিআইডি’র ক্রাইম সিনের কর্মকর্তা কাঞ্চন কুমার রায় এর নেতৃত্বে রাত ১২ টায় ক্রাইম সিন’র একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত লাশ মর্গে প্রেরণের প্রস্ততি চলছে বলে জানা যায়।
এ ব্যাপারে সিআইডি’র ক্রাইম সিনের কর্মকর্তা কাঞ্চন কুমার রায় বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে কোন আলামত পাইনি। নিহত মেয়েটির বয়স ১৫/১৬ বছর হবে বলে আমাদের ধারণা।

শেয়ার করুন