আকাশবীণার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী, কেবিন ও ককপিট পরিদর্শন

সিলেটের সকাল ডেস্ক:: বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার আকাশবীণার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার ( ৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বহরে যুক্ত হওয়া উড়োজাহাজটির উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উড়োজাহাজটির কেবিন ও ককপিট ঘুরে দেখেন। আকাশবীণা যুক্ত হওয়ার পর জাতীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্সের বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫টিতে। ড্রিমলাইনারের দ্বিতীয় উড়োজাহাজটি নভেম্বরে এবং বাকি দুটি আসবে আগামী বছরের (২০১৯) সেপ্টেম্বরে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হবে।

উদ্বোধনের আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক বক্তৃতায় উড়োজাহাজ নিরাপত্তায় গুরুত্ব দিতে বিমানের সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান। তিনি বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারা ধরে রাখতে সবার সহায়তা দরকার বলে উল্লেখ করেন

উদ্বোধনের পর আজ বুধবার রাতেই কুয়ালালামপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে আকাশবীণার প্রথম বাণিজ্যিক ফ্লাইট। ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ ঢাকা-কুয়ালালামপুর রুট ছাড়াও ঢাকা-সিঙ্গাপুর এবং আগামী অক্টোবর থেকে মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি রুটে যাত্রী পরিবহনের ব্যবহৃত হবে ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ।

টানা ১৬ ঘন্টা ফ্লাই করতে পারা এই উড়োজাহাজটিতে মোট আসন রয়েছে ২৭১টি। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাসের আসন ২৪টি। সমূদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৪৩ হাজার ফুট ওফর দিয়ে উড়তে সক্ষম দুই ইঞ্জিনবিশিষ্ট এই উড়োজাহাজ বিশ্বের যে প্রান্তে থাকুক না কেন ঢাকায় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সময় সময় এর যোগাযোগ থাকবে। এটি বোয়িং ৭৬৭ উড়োজাহাজের চেয়ে ২০ শতাংশ কম জ্বালানি লাগে।

শেয়ার করুন