‘অব্যাহত থাকবে বাংলাদেশ-ভারতের বন্ধুত্ব সম্পর্ক’

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: গত ১০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ এবং ভারত যৌথভাবে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ উদ্বোধনের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রেলওয়ের দুটি প্রকল্পের উদ্বোধন করেছি। খুব অল্প সময়ের মধ্যে আমরা কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প উদ্বোধন করতে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, আমাদের যোগাযোগের মাধ্যমে বাংলাদেশ এবং ভারত উভয় দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে। প্রধানমন্ত্রী ( নরেন্দ্র মোদি) আপনার এই উদারতার জন্য আপনাকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

মঙ্গলবার ভারত-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ পাইপলাইন নির্মাণ প্রকল্প ভিডিও কনফারেন্সিং উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে সরকার গঠনের পর থেকে ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করার লক্ষ্যে আমরা বিভিন্নমুখী উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। বিগত সাড়ে নয় বছরে উভয় দেশের মধ্যে বিদ্যুৎ, জ্বালানি, বাণিজ্য, যোগাযোগ, অবকাঠামো, পরিবেশ, নবায়নযোগ্য জ্বালানি, শিক্ষা, গণযোগাযোগ, স্বাস্থ্য প্রভৃতি খাতে বহু পরিমাণে বৃদ্ধি পেয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, যে দুটি প্রকল্প আমরা উদ্বোধন করেছি সেগুলো হচ্ছে ভারতের শিলিগুড়ি হতে বাংলাদেশের পার্বতীপুর পর্যন্ত বাংলাদেশ পর্যন্ত বাংলাদেশ ভারত পাইপলাইন ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন। ঢাকা টঙ্গী সেকশন ডুয়েল গ্যাস লাইন, টঙ্গী জয়দেবপুর সেকশন ডাবল লাইনের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন। ঢাকা-টঙ্গী সেকশনের তৃতীয় চতুর্থ ডুয়েল গ্যাস লাইন, টঙ্গী জয়দেবপুর সেকশনের ডুয়েল গ্যাস লাইন চালু হলে ঢাকা হতে পশ্চিমাঞ্চল, বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু ও উত্তরাঞ্চল এবং চট্টগ্রাম ও সিলেট স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ ও দ্রুততর হবে।

প্রকল্পটির আওতায় ৯৬ কি. মি. রেল লাইন নির্মাণ করা হবে। ভারতের শিলিগুড়ি হতে বাংলাদেশের পার্বতীপুর পর্যন্ত ১৩০ কিমি বাংলাদেশ ভারত ফ্রেন্ডশীপ পাইপলাইন নির্মাণ বাংলাদেশ ভারত সম্পর্কের মাইল ফলক। এটি হবে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে প্রথম পাইপলাইন যা দিয়ে আসাম রাজ্যে তেল শোধনাগার হতে দিনাজপুর জেলার পার্বর্তীপুর ডিপোতে তেল সরবরাহ করবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিবসহ আরও অনেকে।

শেয়ার করুন