সিসিকের ১৬ কেন্দ্রে পুন:ভোট গ্রহণ আজ

ব্যালট পেপার নেয়া হচ্ছে কেন্দ্রে কেন্দ্রে

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ॥ সিলেট সিটি কর্পোরেশন(সিসিক)-এর ১৬টি কেন্দ্রে আজ শনিবার পুন:ভোট গ্রহণ করা হবে। এর মাধ্যমে মেয়রসহ দুই সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও তিনটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের ভাগ্য নির্ধারিত হবে।
সংশ্লিষ্টরা জানান, ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের গাজী বুরহানউদ্দিন গরম দেওয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটার সংখ্যা হচ্ছে ২২২১। আর ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের হবিনন্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটার হচ্ছে ২৫৬৬। এ দুটি কেন্দ্রের পাশাপাশি সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-৭ এর ১৪টি কেন্দ্রেও আজ ভোট গ্রহণ করা হবে।
সিলেট আঞ্চলিক নির্বাচন কমকর্তা ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের রির্টার্নিং অফিসার মো. আলীমুজ্জামান জানান, ভোট গ্রহণের প্রস্তুত রয়েছে ১৬টি কেন্দ্র। শুক্রবারই নির্বাচনী সরঞ্জাম কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে।
গত ৩০ জুলাই অনুষ্ঠিত সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অনিয়ম গোলযোগের কারণে গাজী বুরহান উদ্দিন ও হবিনন্দী কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়। ওই দুটি কেন্দ্রের ফলাফলের জন্য একসাথে দুই মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান এবং কাউন্সিলর প্রার্থীদের ভাগ্য ঝুলে আছে।
স্থগিত হওয়া ২৪ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের দুটি কেন্দ্র মাত্র ১৬১ ভোট পেলেই আরিফুল হক চৌধুরী বিজয়ী হবেন। এ দুই কেন্দ্রে ভোট আছে ৪৭৮৭টি। মেয়র পদে বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরী ৪৬২৬ ভোটে এগিয়ে আছেন। ১৩২টি কেন্দ্রের মধ্যে আরিফুল হক চৌধুরী পেয়েছেন ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট। গত বৃহস্পতিবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদার সাথে দেখা করে মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যাপারে সিইসির কাছে লিখিত আবেদন করেছেন।
এদিকে, সংরক্ষিত ওয়ার্ড-৭ (সাধারণ ওয়ার্ড ১৯, ২০ ও ২১) নাজনীন আকতার কণা- (জিপগাড়ি) ও নার্গিস সুলতানা-(চশমা)র সমান সংখ্যক ভোট হওয়ায় শুধু এ দুজনের মধ্যে ১৪টি ভোট কেন্দ্র ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। শুধুমাত্র সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নির্বাচনের জন্য এই ১৪টি কেন্দ্রের ভোটারদের পুনরায় ভোট কেন্দ্রে আসতে হবে।

পুন:ভোট গ্রহণের দায়িত্ব পালনের জন্য আনসার সদস্যদের প্রস্তুতি

২৭ নম্বর ওয়ার্ডের হবিনন্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র বাদে ওয়ার্ডের বাকি ৪টি কেন্দ্রের ফলাফলে কাউন্সিলর পদে ঘুড়ি প্রতীক নিয়ে এগিয়ে আছেন আজম খান। টিফিন ক্যারিয়ার নিয়ে ২য় অবস্থানে আছেন আব্দুল জলিল নজরুল। এছাড়া এই ওয়ার্ডে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন শাহ মোহাম্মদ বদরুজ্জামান (লাটিম) এবং চঞ্চল উদ্দিন (ঠেলাগাড়ি)। এসব প্রার্থীর মধ্যে যারা প্রয়োজন সংখ্যক ভোট টানতে পারবেন, তিনি পরবেন বিজয়ের মালা।
২৪ নম্বর ওয়ার্ডের গাজী বুরহান উদ্দিন গরম দেওয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বাদে বাকি তিনটি কেন্দ্রের ফলাফলে ঠেলাগাড়ি প্রতীকে সোহেল আহমদ রিপন এগিয়ে রয়েছেন। ঘুড়ি প্রতীক নিয়ে ২য় অবস্থানে রয়েছেন হুমায়ুন কবির সুহিন। এছাড়া মোহাম্মদ শাহজাহান (লাটিম) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন।
সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাধারণ ওয়ার্ড ২২, ২৩ ও ২৪ নিয়ে গঠিত সিসিকের সংরক্ষিত ৮ ওয়ার্ড। স্থগিত হওয়ার গাজী বুরহান উদ্দিন গরম দেওয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত হওয়ার কারণে আটকে আছে সংরক্ষিত ৮ নং ওয়ার্ডের ফলাফল। এই ওয়ার্ডে এগিয়ে আছেন রেবেকা আক্তার লাকী-(জিপগাড়ি)। ২য় অবস্থানে আছেন সালেহা কবীর শেপী- (চশমা)। অপর প্রতিদ্বন্দ্বীরা হচ্ছেন-মোছা. হেনা বেগম-(বই), জোৎস্না ইসলাম-(আনারস), রিনা বেগম-(মোবাইল ফোন)।
সাধারণ ওয়ার্ড ২৫, ২৬ ও ২৭ নিয়ে গঠিত সিসিকের সংরক্ষিত ৯নং ওয়ার্ডের ফলাফল আটকে আছে হবিনন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের জন্য। এই ওয়ার্ডে এগিয়ে আছেন এডভোকেট রোকসানা বেগম শাহনাজ-(চশমা)। ২য় অবস্থানে আছেন সামিরুন নেসা-(গ্লাস)। তাদের অপর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা হচ্ছেন আসমা বেগম-(বই) আসমা বেগম- (মোবাইল), পারভিন বেগম- (জিপগাড়ি), নাসিমা চৌধুরী-(ডলফিন), রুবি বেগম-(হেলিকপ্টার), লিজা আক্তার- (আনারস)। এ কেন্দ্রে আরো ৭১টি ভোট পেলে বিজয়ী হবেন রোকসানা বেগম শাহনাজ।
প্রসঙ্গত, গত ৩০ জুলাই সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। মোট ১৩৪ কেন্দ্রের মধ্যে ১৩২টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ যথারীতি অনুষ্ঠিত হলেও গোলযোগের কারণে দুটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত রাখা হয়। নির্বাচন কমিশন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ২৪ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের দুটি কেন্দ্র এবং সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড ৭ এর ১৪টি কেন্দ্রে পুনরায় ভোট গ্রহণের নির্দেশনা প্রদান করে।

শেয়ার করুন