‘সাংবাদিকদের উপর হামলাকারীদের শাস্তি নিশ্চিতের দাবি’

নগরীতে ইমজার মানববন্ধন

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে সিলেটে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন-ইমজা। বুধবার সকালে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ প্রতিবাদ কর্মসূচী পালন করা হয়।

মানববন্ধন চলাকালে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিকদের উপর হামলা প্রকারান্তে গণমাধ্যমের স্বাধীনতার উপরই হামলা। অথচ আমাদের দেশে প্রায়ই দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে হামলার শিকার হন গণমাধ্যমকর্মীরা। সর্বশেষ নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে বর্বর হামলার শিকার হন অন্তত ৫ জন সাংবাদিক। কিন্তু এখন পর্যন্ত হামলাকারীদের চিহ্নিত ও গ্রেপ্তার করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বক্তারা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, প্রকাশ্যে সাংবাদিকদের উপর হামলার পরও হামলাকারীদের এখন পর্যন্ত চিহ্নিত করতে না পারায় এক্ষেত্রে প্রশাসনের আন্তরিকতাকেই প্রশ্নবিদ্ধ করে। অভিলম্বে হামলাকারীদের পরিচয় নিশ্চিত করে তাদের শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান বক্তারা।

একইসঙ্গে মুক্ত গণমাধ্যমের পরিবেশ নিশ্চিতকরণ ও গণমাধ্যমের উপর কোনোরূপ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার চেষ্টা না করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয় মানববন্ধন থেকে। আহত সাংবাদিকদের চিকিৎসা নিশ্চিত ও সাংবাদিকদের জন্য নিরাপদ কর্ম পরিবেশ তৈরিরও দাবি জানান বক্তারা।

ইমজা সভাপতি আশরাফুল কবীরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ দেবুর সঞ্চালনায় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবির, ইমজার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আল আজাদ ও বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের বিভাগীয় সভাপতি আব্দুল বাতিন ফয়সল।

মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন নিউএইজ এর সিলেট প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান মনির, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সিলেট ব্যুরো প্রধান শাহ দিদার আলম নবেল, ইমজা’র সাবেক সভাপতি সংগ্রাম সিংহ, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সমরেন্দ্র বিশ^াস, আব্দুর রশিদ রেনু, দৈনিক সিলেট ডটকম’র সম্পাদক মুহিত চৌধুরী, ইমজা’র কার্যনির্বাহী কমিটির সহ-সভাপতি গাজী মো. জাফর সাদেক, আনিস রহমান, কোষাধ্যক্ষ এফএ মুন্না, প্রচার সম্পাদক হোসাইন আহমদ সুজাদ, সদস্য নাজমুল কবির পাবেল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহাবউদ্দিন শিহাব, আব্দুল আলিম শাহ, লিটন চৌধুরী, সজল ছত্রীসহ সিলেটে কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা।

শেয়ার করুন