মার্কিন সিনেটর জন ম্যাককেইন মারা গেছেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: এক বছরের বেশি সময় ধরে রোগভোগের পর গতকাল শনিবার মার্কিন সিনেটর জন ম্যাককেইন (৮১) মারা গেছেন। তিনি মস্তিষ্কে টিউমারসংক্রান্ত জটিলতায় ভুগছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে ভিয়েতনাম যুদ্ধে অংশ নেওয়া ম্যাককেইন পরে রাজনীতিতে যোগ দেন। তিনি প্রেসিডেন্ট প্রার্থী পদেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

আজ রোববার বিবিসি অনলাইনের খবরে বলা হয়, এর আগে গত শুক্রবার ম্যাককেইনের পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁর চিকিৎসা বন্ধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়। ম্যাককেইন মারা যাওয়ার সময় তাঁর পরিবারের সদস্যরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। গত বছরের জুলাই মাসে তাঁর মস্তিষ্কে আগ্রাসী টিউমার ধরা পড়ে।

ম্যাককেইনের মৃত্যুর পর তাঁর মেয়ে মেগান টুইটারে লিখেছেন, বাকি জীবন তিনি বাবাকে অনুসরণ করে বাবার ভালোবাসা ও প্রত্যাশা নিয়ে কাটাতে চান। আবেগঘন সেই বার্তায় তিনি বলেছেন, ‘আমার বাবাকে ছাড়া আসছে দিনগুলো আমার জন্য আগের মতো থাকবে না। কিন্তু সেই দিনগুলোও ভালো হবে, ভালোবাসা ও প্রাণে ভরপুর থাকবে। কারণ, তিনি (ম্যাককেইন) তাঁর জীবনযাপনের উদাহরণ আমাদের সামনে রেখে গেছেন।’

ছয়বারের সিনেটর ও ২০০৮ সালে রিপাবলিকান পার্টির হয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া ম্যাককেইনের অসুস্থতা ধরা পড়ে গত বছরের জুলাই মাসে। ওই সময়ে তাঁর বাঁ চোখে জমাট বাঁধা রক্ত সরাতে অস্ত্রোপচারের সময় চিকিৎসকেরা তাঁর টিউমারের বিষয়টি জানতে পারেন।

ভিয়েতনাম যুদ্ধে ম্যাককেইন পাইলট যোদ্ধা ছিলেন। তাঁর বিমান গুলি করে ভূপাতিত করা হলে তাঁকে পাঁচ বছর বন্দিজীবন কাটাতে হয়।

ম্যাককেইনের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন পর্যায় থেকে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানানো শুরু হয়। একই দলের হলেও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কড়া সমালোচক ছিলেন ম্যাককেইন। তাঁর মৃত্যুর পর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প টুইটার বার্তায় লিখেছেন, ‘সিনেটর জন ম্যাককেইনের পরিবারের প্রতি আমার গভীর সমবেদনা ও শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। আপনাদের জন্য আমাদের ভালোবাসা ও প্রার্থনা রয়েছে।’

২০০৮ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ম্যাককেইনের রানিং মেট সারাহ পলিন ম্যাককেইনের সঙ্গে তাঁর ছবিসহ টুইটারে লিখেছেন, ‘বিশ্ব একজন প্রকৃত আমেরিকান হারাল।’

ওই নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী বারাক ওবামা জয়ী হন। ম্যাককেইনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বারাক ওবামা বলেছেন, রাজনৈতিক মতপার্থক্য থাকলেও যে আদর্শের জন্য আমেরিকান ও অভিবাসী প্রজন্মের লড়াই, অগ্রযাত্রা ও ত্যাগ স্বীকার, তাতে তাঁদের দুজনের বিশ্বস্ততা এক অন্য উচ্চতায় ছিল।

ওবামা আরও বলেন, জন যা করেছেন, তা খুব কম লোকই করেছেন। তাঁর মতো সাহস খুব কম লোকই দেখাতে পেরেছেন।

ম্যাককেইনের দীর্ঘদিনের বন্ধু ও রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, আমেরিকার ওপর ম্যাককেইনের প্রভাব কখনো শেষ হবে না। ম্যাককেইন প্রমাণ করেছেন, কিছু সত্য সব সময়ের জন্যই উপযোগী। তা হলো চরিত্র, সাহস আর ন্যায়পরায়ণতা।

শেয়ার করুন