জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন ছাত্রদল নেতা পুলিশ কাস্টডিতে

ময়না তদন্তশেষে রাজুর লাশ নিয়ে যাচ্ছে ছাত্রদল নেতা-কর্মীরা

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ॥ সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-প্রচার সম্পাদক ফয়জুল হক রাজু খুনের ঘটনায় ছাত্রদলের তিন নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ কাস্টডিতে নেয়া হয়েছে। তারা হলেন-জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি লিটন আহমদ, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এখলাছুর রহমান মুন্না ও জেলা ছাত্রদলের বর্তমান কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক (পদত্যাগকারী) আনোয়ার হোসেন রাজু।
কোতয়ালী থানার সহকারী কমিশনার সাদেক কাউসার দস্তগীর দুই ছাত্রদল নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই ছাত্রদল নেতাকে থানায় নেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ছাত্রদলের একটি সূত্র তিন জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে।
রোববার দুপুরে নগরীর মানিক পীর টিলা এলাকায় রাজুর লাশ গোসলের সময় সেখানে উপস্থিত জেলা ছাত্রদলের বর্তমান কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক (পদত্যাগকারী) আনোয়ার হোসেন রাজুকে আটক করে সোবহানীঘাট ফাঁড়িতে নিয়ে যান ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই কামাল আহমদ। খবর পেয়ে ছাত্রদল নেতা লিটন আহমদ ও এখলাছুর রহমান মুন্না সোবহানীঘাট ফাঁড়িতে গেলে তাদেরকেও পুলিশ আটক করে নিয়ে যায় কোতয়ালী থানায়।
এদিকে, দুই দফা নামাজে জানাজা শেষে মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার শাহপুর গ্রামে দাফন করা হয়েছে ছাত্রদল নেতা ফয়জুল হক রাজুকে। গতকাল রোববার বাদ এশা গ্রামের বাড়ী শাহপুরে দ্বিতীয় জানাযার নামাজ শেষে তাকে দাফন করা হয় বলে জানিয়েছেন ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী।
গত শনিবার রাতে সিলেট নগরীর কুমারপাড়া পয়েন্টে জেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট অন্তর্দ্বন্দ্বের জেরে ছাত্রদলের দু’পক্ষের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ছাত্রদল নেতা রাজু নিহত হন। এ ঘটনায় আহত হন ২ জন।

শেয়ার করুন