জহির-তাহির উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ফলাফল বাতিল চান ২৭ নং ওয়ার্ডের নজরুল

ডেস্ক রিপোর্ট:সিলেট সিটি কর্পোরেশনের জহির-তাহির মেমোরয়িাল উচ্চ বিদ্যালয়ের দুটি কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত করে ওয়ার্ডের অপর কেন্দ্রের মত পুনরায় ভোট গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন কাউন্সিলর প্রার্থী আব্দুল জলিল নজরুল। দুই বারের সাবেক এ কাউন্সিলর দাবি করছেন, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আজম খানের লোকজন স্মরণকালের অনিয়ম ও জাল ভোট প্রদানের নজির সৃষ্টি করেছেন ২৭ ওয়ার্ডের সবকটা কেন্দ্রে। প্রিসাইডিং/ পোলিং অফিাসরের সিল ছাড়া
প্রায় ৭/৮শ ব্যালট পেপার ঘুুড়ি প্রতীকের আজম খানের প্রাপ্ত ভোটের সাথে যুক্ত করা হয়েছে বলেও তিনি অভিযোগ করেছেন।
শনিবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে আব্দুল জলিল নজরুল এই দুই কেন্দ্রের ভোট পুন: গ্রহণের দাবি জানান।
সিলেট সিটি কর্পোরেশনের গত ৩০ জুলাই অনুষ্ঠিত নির্বাচনকে স্মরণকালের বর্বরোচিত নির্বাচন উল্লেখ করে টিফিন ক্যারিয়ার প্রতীকের প্রার্থী আব্দুল জলিল নজরুল বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বহিরাগত সন্ত্রাসী ও আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহযোগিতায় জহির তাহির মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র ও হবিনন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোটের মহোৎসব করেছে। জহির-তাহির উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের পাঠানপাড়া, আচার্য্যপাড়া, কৃষাণপুর ও প্রত্যপাড়ার ভোটাররা নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেননি। তারা ভোট কেন্দ্রে গিয়ে দেখেন তাদের ভোট দেয়া হয়ে গেছে।
আব্দুল জলিল নজরুল দাবি করেন, সমান অনিয়মের কারণে হবিনন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করলেও রহস্যজনক কারণে জহির-তাহির কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত বা বাতিল করা হয়নি।
নজরুল আরো দাবি করেন, জহির তাহির মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোট গণনাকালে আওয়ামীলীগ নেতা আজম খানের ঘুড়ি মার্কার ৭/৮শ ব্যালট পেপারে প্রিসাইডিং/ পোলিং অফিসারের সিল ছাড়া পাওয়া যায়। তাৎক্ষনিকভাবে এজেন্টরা এই সিল ছাড়া ব্যালট পেপার গণনায় না আনার জন্য দাবি এবং আবেদন জানালেও উল্টো পুলিশ এজেন্টদের বের করে দেয়। ঘটনাটি ওয়ার্ডবাসীর সামনেই ঘটে।
লিখিত বক্তব্যে আব্দুল জলিল নজরুল ২৭ নং ওয়ার্ডের জহির-তাহির মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের পুরুষ এবং মহিলা দুটি কেন্দ্রের ভোট বাতিল করে পুনরায় ভোট গ্রহণের জন্য রির্টার্নিং অফিসারের কাছে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন বলে উল্লেখ করেন। তিনি এই আবেদনের সাথে যারা ভোট দিতে পারেননি তাদের জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিও সংযুক্ত করে দিয়েছেন বলে জানান। সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল জলিল নজরুলের সাথে বিপুল সংখ্যক ওয়ার্ডবাসী উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, আগামী ১১ আগষ্ট ২৭ নং ওয়ার্ডের স্থগিতকৃত হবিনন্দী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে পুনরায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাইস্তা মিয়া, হাজী আব্দুল মন্নান, এডভোকেট আব্দুল খালিক, জালাল আহমদ, নূর উদ্দিন, ইয়াহিয়া, সিরাজুল ইসলাম কুনু, বাবর আহমদ, আছগর আলী, রিয়াজ মিয়া, জাহাঙ্গীর আলম, রফিকুল ইসলাম লিঙ্কন, এডভোকেট রাজু মো. জামিল, সুমন আহমদ চৌধুরী, শফি আহমদ, লিমন আহমদ, আরিফ আহমদ, কামরান আহমদ প্রমুখ।

শেয়ার করুন