‘গরু মেরেছে, তাই তাদের মেরেছি’

গোপন ক্যামেরায় রাকেশ সিসোদিয়া (ডানে)

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি’র একটি অনুসন্ধান দল গোপন ক্যামেরা নিয়ে মাঠে নামে। যারা গোহত্যার ধোঁয়া তুলে মানুষ হত্যা করেছে, তাদের সন্ধানেই বেরোয় দলটি। তারা রাষ্ট্রীয় সোয়াইয়ামসেবক সংঘ (আরএসএস) এর কর্মীবাহিনী হিসেবে দুটো রাজ্যে অনুসন্ধান চালায়। উঠে আসে কিছু বিদঘুটে বিষয়।

প্রথম রিপোর্টটি করা হয় উত্তর প্রদেশের হাপুর থেকে। সেখানে গত ১৮ জুন ৪৫ বছর বয়সী মাংস বিক্রেতা কাসিম কোরেশিকে হত্যা করা হয়। তিনি গরুর মাংস বিক্রেতা ছিলেন। ওই হামলায় ৬৫ বছর বয়সী সামিউদ্দিন মারাত্মক আহত হয়েছিলেন। এ ঘটনায় পুলিশ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করে। তাদের বিরুদ্ধে হত্যা, হত্যাচেষ্টা এবং দাঙ্গা বাঁধানোর অভিযোগ আনা হয়েছে। ওই ৯ জনের মধ্যে ৪ জন জামিনে মুক্ত হয়েছেন।

অনুসন্ধানকারী দলটি হাপুরের বাজেধা খুর্দ গ্রামে যায় রাকেশ সিসোদিয়া নামের জামিনে মুক্ত এক অভিযুক্তের সঙ্গে কথা বলতে। তিনি আদালতে এক লিখিত বিবৃতিতে জানান, ওই হামলায় তার কোনো ভূমিকা ছিল না। ঘটনাস্থলে উপস্থিতও ছিলেন না। কিন্তু এমন হামলার বিষয়ে তিনি সমর্থন জানিয়েছেন, যা উঠে এসেছে গোপন ক্যামেরায়।

কিন্তু জেলে থাকা অবস্থায় জেলারকে তিনি বলেছেন, ‘তারা গরু মেরেছে, তাই আমি তাদের মেরেছি’। ‘জেলে যেতে আমার ভয় নেই। জেলার জানতে চেয়েছিলেন তাই বলেছি’, জানান তিনি।

সিসোদিয়া আরো জানান, জামিন নিয়ে গ্রামে ফেরার সময় তাকে বীরত্বের সম্মান দেয়া হয়েছে। জেল থেকে বাড়িতে আনতে ৩-৪টি গাড়ি গিয়েছিল। তার নাম ধরে স্লোগান দেয়া হয়। সবাই তাকে সম্মান জানিয়েছে। এ ঘটনায় তিনি গর্ববোধ করেন।

আরো মারাত্মক তথ্য দিয়েছেন তিনি। বলেন, ‘এ ঘটনা ঘটানোয় পুলিশ আমাদের পক্ষে ছিল। কারণ সরকার আমাদের পক্ষে। তাছাড়া এমনটা ঘটানো সম্ভব ছিল না’।

ওই আক্রমণের ভিডিওতে দেখা যায়, কাসিমকে বলা হচ্ছিলো যে তার পানি খাওয়ার কোনো অধিকার নেই। কারণ তিনি গরু হত্যা করেছেন। আমাদের বাহিনী তাদের প্রতি মিনিটে মারবে।

জানান, তাদের মেরে ৩ ঘণ্টার যাত্রায় হাপুর থেকে আলওয়ারের বেহরোর শহরে পৌঁছান।

এর আগে ২০১৭ সালে এপ্রিলে গো হত্যার অভিযোগ তুলে হত্যা করা হয় পেহলু খানকে। ওই ঘটনায় ৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হলেও এখন সবাই জামিনে রয়েছেন। তাদেরই একজন ভিপিন যাদব। সবার মতো তিনিও ঘটনার সময় উপস্থিত ছিলেন না দাবি করেন।

যাদব বলেন, ‘আমরা তাকে দেড় ঘণ্টা ধরে মেরেছি। প্রথমে ১০ জনের মতো ছিলাম। পরে আরো মানুষ জড়ো হয়ে যায়। তারা ট্রাকে করে গরু নিয়ে যাচ্ছিলো। সেখানে পেহলুর ট্রাক আটকে তাকে বেদম প্রহার করা হয়’।

সূত্র: এনডিটিভি

শেয়ার করুন