হলমার্কের চেয়ারম্যান জেসমিনের ৩ বছর কারাদণ্ড

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: সম্পদের বিবরণী দাখিল না করায় হলমার্কের চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলামের তিন বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বুধবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামানের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন।

কারাদণ্ডের পাশাপাশি জেসমিন ইসলামকে ২০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আগামী ৬০ কার্যদিবসের মধ্যে জরিমানার টাকা রাষ্ট্রের অনুকূলে আদায়ের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রায় ঘোষণাকালে জেসমিন ইসলামকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়।

দণ্ডিত জেসমিন ইসলাম হলমার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) তানভীর মাহমুদের স্ত্রী। তারা উভয়ই হলমার্ক ঋণ কেলেঙ্কারির মামলার আসামি।

এদিকে, রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন আসামিপক্ষের আইনজীবী শফিকুল ইসলাম। এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যাবেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন তিনি। তবে রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন দুদক প্রসিকিউটর মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর।

সম্পদের বিবরণী দাখিল না করার অভিযোগে ২০১৩ সালের ১২ ডিসেম্বর দুদক কমিশনের উপ-সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন রমনা থানায় নন-সাবমিশন মামলা দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, প্রাথমিক অনুসন্ধানে জেসমিন ইসলামের নামে-বেনামে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদ অর্জনের তথ্য-উপাত্ত পায় দুদক। এর পর দুদক তাকে সম্পদ বিবরণী দাখিলের নির্দেশ দেয়। নির্দেশ অনুযায়ী সম্পদ বিবরণী জমা না দিয়ে তিনি আইনজীবীর মাধ্যমে সময় বাড়ানোর আবেদন করেন। তবে সময় বাড়ানোর পরও সম্পদ বিবরণী দাখিল না করায় মামলা দায়ের করা হয়।

মামলাটি তদন্ত করে ২০১৪ সালের ২২ অক্টোবর দুদকের উপ-পরিচালক মনজুর মোরশেদ আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। পরে ২০১৬ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি আদালত চার্জ গঠন করে আসামির বিচার শুরু করেন। মামলাটির বিচারকাজ চলাকালে সাত সাক্ষীর মধ্যে ছয়জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত। আত্মপক্ষ শুনানিতে জেসমিন ইসলাম নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। এর পর তার পক্ষে একজনের সাফাই সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত।

শেয়ার করুন