হজ কার্যক্রমের উদ্বোধন বুধবার

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: চলতি বছর হজ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে বুধবার। রাজধানীর আশকোনায় ক্যাম্পে হজ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর হজযাত্রীদের সৌদি আরব যাওয়ার ফ্লাইট শুরু হবে ১৪ জুলাই।

সোমবার বিকালে সচিবালয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান এসব কথা জানান। এর আগে এবারের হজ কার্যক্রমের সর্বশেষ অগ্রগতি পর্যালোচনায় ধর্মমন্ত্রীর সভাপতিত্বে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ বছর থেকে সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতালেও হাজযাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। সৌদি আরব সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী হজে যাওয়ার আগে স্বাস্থ্যের পরীক্ষা করাতে হয়। হজযাত্রীরা রক্তের গ্রুপ, ব্লাড সুগার, এক্সরে এবং ইসিজি বেসরকারি হাসপাতালেও করাতে পারবেন। সোমবারের আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। হজে যেতে ঢাকায় সৌদি দূতাবাস থেকে ভিসা নেওয়ার আগে হজযাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার রিপোর্টও পাসপোর্টের সঙ্গে জমা দিতে হচ্ছে।

৩ জুলাই থেকে সরকারি হাসপাতালগুলোতে এ স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) সানিয়া তাহমিনা বলেন, স্বাস্থ্য পরীক্ষার বিষয়ে সৌদি সরকার কড়াকড়ি করেছে, এজন্য আমরা স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বেশি মনোনিবেশ করছি। এ পরীক্ষা সরকারি-বেসরকারিভাবে করাতে পারবেন।

সরকারিভাবে করলেও বিনা পয়সায় করা যায় না, ইউজার ফি দিতে হয়। সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের জন্য পরীক্ষা করার সক্ষমতা রয়েছে। কিন্তু বিপুল পরিমাণ হজযাত্রীদের সেবা করার সক্ষমতা নেই।

লিখিত বক্তব্যে ধর্মমন্ত্রী জানান, সৌদি আরবের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী এ বছর বাংলাদেশ থেকে হজে যাবেন ১ লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬ হাজার ৭৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ জন হজযাত্রী যাবেন। ২১ আগস্ট (চাঁদ দেখা সাপেক্ষে) পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। ১১ জুলাই আশকোনায় হজ কার্যক্রম শুরু হবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হজ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন।

তিনি বলেন, এবার ৫২৮টি হজ এজেন্সি হজ কার্যক্রম পরিচালনার সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। হজ ফ্লাইট শুরু হবে ১৪ জুলাই এবং হজ ফ্লাইট শেষ হবে ১৫ আগস্ট। হজের ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ২৭ আগস্ট এবং শেষ হবে ২৫ সেপ্টেম্বর। বাংলাদেশ বিমান ১৮৭টি ফ্লাইটে ৬৪ হাজার ৯৬৭ জন এবং সাউদিয়া ১৮৮টি ফ্লাইটে ৬১ হাজার ৮৩১ হজযাত্রী পরিবহন করবে।

ধর্ম সচিব আনিছুর রহমান জানান, সাউদিয়া এয়ারলাইন্স থেকে ৪৬ হাজার ৭৫৫টি এবং বাংলাদেশ বিমান থেকে ৫১ হাজারের বেশি টিকিট ইস্যু করা হয়েছে। তিনি বলেন, সৌদি থেকে সময়মতো রেসপন্স না পাওয়ার কারণে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে। তবে গেল বছরের এ সময়ের থেকে অনেক অনেকগুণ এগিয়ে আছি।

শেয়ার করুন