সিসিক নির্বাচন: ভোটার উপস্থিতি কমেছে

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: সদ্যসমাপ্ত সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ১৩২টি ভোটকেন্দ্রের ঘোষিত ফলাফলে দেখা গেছে এবার ৬২শতাংশ ভোটার ভোট দিয়েছেন। যেখানে ২০১৩ সালে অনুষ্ঠিত এ সিটির নির্বাচনে ভোট পড়েছিলো ৬৩ দশমিক ১১ শতাংশ। সে তুলনায় এবছর ভোটার উপস্থিতি কমেছে ১ দশমিক ১১ শতাংশ। এর আগে ২০০৮ সালের নির্বাচনে ৭৫ শতাংশ ভোটারই ভোট দিয়েছিলেন।

সোমবার অনুষ্ঠিত সিলেট সিটি নির্বাচনের মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ২১ হাজার ৭৩২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৭১ হাজার ৪৪৪ জন এবং মহিলা ১ লাখ ৫০ হাজার ২৮৮ জন। এবারের নির্বাচনে ১ লাখ ৯৮ হাজার ৬৫৭ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। বাতিল ভোট রয়েছে ৭ হাজার ৩৬৭টি।

নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ-বিএনপির প্রার্থীসহ ৬ জন, ২৭ ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১২৭ জন এবং ৯টি সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৬২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। দুটি কেন্দ্রে নির্বাচন স্থগিত হওয়ার কারণে মেয়র পদের ফল ঘোষণা হয়নি।

তবে ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগের বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট।

২০১৩ সালে ১৫ জুন তৃতীয় সিলেট সিটি নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ২ লাখ ৯১ হাজার ৪৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ৫২ হাজার ১৮১ জন এবং ১ লাখ ৩৮হাজার ৮৬৫ জন মহিলা ভোটার ছিলেন। গত নির্বাচনে ১২৭টি ভোটকেন্দ্রে ১ লাখ ৮৩ হাজার ৬৭৭ জন ভোটার ভোট দেন, যা মোট ভোটারের ৬৩ দশমিক ১১ শতাংশ।

গত সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে প্রায় ৩০ হাজার ভোটে পরাজিত করে মেয়র পদে নির্বাচিত হন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী।

এর আগে ২০০৮ সালে তত্বাবধায়ক সরকারের আমলে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় সিলেট সিটি নির্বাচনে ভোট দিয়েছিলেন ৭৫ শতাংশ ভোটার ভোট দিয়েছিলেন। ওই বছর সিলেটে মোট ভোটার ছিল ২ লাখ ৫৬ হাজার ৪৮০। নির্বাচনে কারাগারে থেকে ৮০ হাজার ভোটের বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়েছিলেন বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।

শেয়ার করুন