লন্ডনে স্বজনদের ভালোবাসায় সিক্ত মেজর জেনারেল আসহাব ও ডা. শিব্বির আহমদ

লন্ডন প্রতিনিধি:: তিলপাড়া ইউনিয়ন ওয়েলফেয়ার এন্ড এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকে’র উদ্যোগে যুক্তরাজ্যে ভ্রমণরত মাটিজুরা গ্রামের কৃতিসন্তান কুয়েত ও ইয়েমেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক

রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ আসহাব উদ্দিন এবং লন্ডনে চিকিৎসা বিজ্ঞানে উচ্চশিক্ষারত দাসউরা গ্রামের সন্তান ডা. শিব্বির আহমদ সুহেলকে স্বজন সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।

গত বুধবার সন্ধ্যায় লন্ডনের ব্লুমুন মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত স্বজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংগঠনের সদস্য

বৃন্দ ছাড়াও বাংলাদেশ সেন্টার লন্ডন, বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে, বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে, বিয়ানীবাজার প্রগতি এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকে ও বিয়ানীবাজার ক্যান্সার হাসপাতালের দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে মেজর জেনারেল (অব.) আসহাব উদ্দিন বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ সরকারের কূটনৈতিক দায়িত্ব পালন করেছি। এজন্য অনেক সভা-সমাবেশ ও মতবিনিময় সভায় যোগ দিয়েছি। কিন্তু এবারই প্রথম আমার আত্মপরিজনের ডাকে ‘স্বজন সংবর্ধনা’ অনুষ্ঠানে যোগদান করেছি। বিশ্বাস করেন, স্বজন শব্দটি আমাকে এতই আপ্লুত করেছে- অন্য একটি মিটিংয়ে না গিয়ে আমি এখানে এসেছি।

তিনি বলেন, এতোদিন পর বুঝতে পেরেছি, আমি আর একা নয়; আমার চারপাশে যোগ্যতম লোকের বসবাস রয়েছে। তবে দুঃখ একটাই, যখন দায়িত্বশীল ছিলাম তখন আপনাদের সাড়া পাইনি। নতুবা এলাকার আর্তসামাজিক উন্নয়নে যথেষ্ট ভূমিকা রাখতে পারতাম।

মেজর জেনারেল আসহাব আরও বলেন, ব্যক্তিগত নয় তবে জনসাধারণের মঙ্গলের জন্য যেকোন কাজে আমাকে ডাকবেন। স্বজনদের মুখে হাসি ফুঁটানোর চেষ্টা করবো।

অপর সংবর্ধিত অতিথি ডা. শিব্বির আহমদ সুহেল বলেন, তিলপাড়া ইউনিয়নের মানুষ সমাজের নানা ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। কিন্তু আমরা এখনো একতাবদ্ধ হতে পারিনি। আমরা নিজ নিজ পেশায় বিচ্ছিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, উন্নয়নশীল সমাজে প্রতিষ্ঠিত ও দাপুটের সাথে চলতে হলে ঐক্যের কোন বিকল্প নেই। আমরা যদি একে অন্যকে সাহায্য সহযোগীতা করি তাহলে প্রত্যেকেই খুব দ্রুত বিকশিত হতে পারবো।

ডা. শিব্বির আরও বলেন, আমাকে এ সম্মানে ভূষিত করায় আমি সত্যিই আনন্দিত। এজন্য সংগঠনের সকল সদস্যের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। তিনি ডাক্তারি পেশায় সফলকাম হতে সকলের দোয়া কামনা করেন।

ট্রাস্টের সভাপতি মামুন রশীদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন টিপুর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ডা. জাকারিয়া আহমদ, ডা. আলা উদ্দিন, বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকের সাবেক সভাপতি আলহাজ মুহিবুর রহমান মুহিব, বিয়ানীবাজার ক্যান্সার হাসপাতালের সিইও সাব উদ্দিন, বিয়ানীবাজার জনকল্যাণ সমিতির ইউকের সাবেক সভাপতি হাজী আব্দুছ সফিক, বাংলাদেশ সেন্টার লন্ডনের সাধারণ সম্পাদক মো. দেলওয়ার হোসেন, গ্রেটার সিলেট ডেভেলাপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল (জিএসসিইউকে সাউথ ইস্ট রিজিওনের সহ-সভাপতি মাওলানা রফিক আহমদ রফিক, ট্রেজারার সূফী সুহেল আহমদ, মোহাম্মদ তাজ উদ্দিন, আরিফ উদ্দিন, খালেদুল কিবরিয়া, গোলাপগঞ্জ এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকের সাবেক সভাপতি মোস্তফা মিয়া, বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতির ইউকের সভাপতি জাহাঙ্গীর খান, বিয়ানীবাজার প্রগতি এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকের সভাপতি হাবিবুর রহরমান ময়না, বিসিএ ইউকের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসরাফ উদ্দিন, কাউন্সিলর শাহ সুহেল আমিন, কাউন্সিলর রুহেল আহমদ, কাউন্সিলর সাদ চৌধুরী, ট্রাস্টের সহ সভাপতি আকরম আলী এমাদ, যুগ্ম সম্পাদক সামছুল হক এহিয়া, আব্দুল হাকিম হাদী, নাছির উদ্দিন ফয়ছল, জুবের আহমদ প্রমুখ।

এদিকে সংবর্ধিত মোহাম্মদ আসহাব উদ্দিন এনডিসি, পিএসসিকে ক্রেস্ট প্রদান করেন বার্তা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট রন্ধনশিল্পী জুবের আহমদ ও মো. ছওয়াফ উদ্দিন, ফুলেল শুভেচ্ছা জানান আতাউর রহমান আবু ও সুনাম উদ্দিন।

অপরদিকে বিয়ানীবাজার ডায়াবেটিক সেন্টারের পরিচালক ও ৫২ বর্ডার গার্ড ব্যাটলিয়নের মেডিকেল অফিসার ডা. শিব্বির আহমদ সুহেলকে ক্রেস্ট প্রদান করেন আকরম আলী এমাদ ও ময়নুল হোসেন, ফুলেল শুভেচ্ছা জানান নাছির উদ্দিন ফয়ছল ও কবির উদ্দিন।

শেয়ার করুন