পরিকল্পিত ও আধুনিক নগরী গড়ার প্রতিশ্রুতি আরিফ-কামরানের

সিলেটের সকাল ডেস্ক:: ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে সিলেট নগরীর একটি হোটেলে গতকাল রোববার ‘সংলাপে নাগরিক অগ্রাধিকার’ শীর্ষক টাউন হল অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সিলেটে আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে সিলেট মহানগরের নাগরিকদের দৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো আলোচনার জন্য প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর মেয়র প্রার্থীদের সাথে নাগরিক সমাজ ও রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে এই সংলাপ আয়োজন করা হয়।

টাউনহল অনুষ্ঠানটিতে প্যানেল বক্তা হিসেবে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ও সিলেট মহানগর শাখার সভাপতি এবং সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমেদ কামরান এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট মহানগর শাখা সদস্য বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত সিলেটের নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি এবং স্থানীয় গণমাধ্যম প্রতিনিধি, সিলেট নগরীর প্রধান পাঁচটি নাগরিক অগ্রাধিকারের বিষয়ে তাদের সুপারিশসমূহ তুলে ধরেন এবং মেয়র পদপ্রার্থীদের পরিকল্পনার বিষয়ে জানতে চান। বিষয়গুলো ছিলো- ১. বর্জ্য ব্যবস্থাপনার আধুনিকায়ন, সকলের জন্য সুপেয় পানির ব্যবস্থা, ফুটপাত দখলমুক্ত রাখা, প্রয়োজনীয় সংখ্যক প্রাথমিক স্কুল, স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র, ও কবরস্থান সহ ভৌত অবকাঠামোর উন্নয়ন ২. জলাবদ্ধতার নিরসন ৩. যানজট নিরসন ৪. সকল বয়সের নাগরিকদের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থা ৫. নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দু’জন প্রধান মেয়র প্রার্থী এই বিষয়গুলোতে তাদের অতীত সাফল্য ও ভবিষ্যত পরিকল্পনা তুলে ধরেন। পাশাপাশি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন ও সহাবস্থানে তাদের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

এই সংলাপ অনুষ্ঠানটি ইউএসএআইডি ও ইউকেএইড এর যৌথ অর্থায়নে এবং ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের বাস্তবায়নে ঝঃৎবহমঃযবহরহম
চড়ষরঃরপধষ খধহফংপধঢ়ব রহ ইধহমষধফবংয প্রকল্পের ‘শান্তিতে বিজয়’ ক্যাম্পেইনের আওতায় অনুষ্ঠিত হয়। শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের প্রোগ্রাম ডিরেক্টর আমিনুল আহসান। অনুষ্ঠানে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ,বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, আইনজীবী, সাংবাদিক, এনজিও প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন পেশাজীবীরা অংশ নেন। মুখোমুখি সংলাপে নাগরিক সমস্যা সমাধান এবং তাদের অতীত কর্মকান্ড তুলে ধরেন । অনুষ্ঠানে দুই মেয়র প্রার্থীই আগামী দিনগুলোতে সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় নগরকে সাজানোর লক্ষ্যে কাজ করার প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেন। তারা নির্বাচিত হলে পরিকল্পিত আধুনিক নগরী গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দেন ।

শেয়ার করুন