আখালিয়ার নোয়াপাড়ায় প্রবাসী পরিবারের বাসা দখলে মরিয়া ভূমিখেকো চক্র

সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: নগরীর আখালিয়ায় একটি বাসা জবর দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে প্রতিবেশি ভুমিখেকো চক্র। ওই চক্র যে কোন মুহূর্তে তাদের উপর হামলাসহ ক্ষতি সাধন করতে পারে বলে অভিযোগ করছে প্রবাসি ওই পরিবার। আখালিয়ার নোয়াপাড়া এলাকার বন্ধন-বি/৭ এর প্রবাসী হোসেন আহমদ এর স্ত্রী ফারহানা হোসেন সোমবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন।

সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন, গত ৫ মে বন্ধন-বি/৭ এর বাসিন্দা হাজী মো. তোতা মিয়ার পুত্র মো. আব্দুর রউফ ও মো. ইউনুছ মিয়া এবং তাদের সহযোগীরা দেশিয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে বসতবাড়ি দখলের উদ্দেশ্যে অনুপ্রবেশ করে। আত্মীয়-স্বজন মিলে তাদেরকে বাধা দিলে এ যাত্রায় বসতবাড়ি রক্ষা পায়। যাওার সময় তারা প্রাণনাশের হুমকিসহ জান-মালের ক্ষতিসাধন করবে বলে হুমকি দিয়ে যায়। এ ঘটনায় জালালাবাদ থানায় তিনি একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। যার নং ৪৯২।

ফারহানা হোসেন জানান, তাদের স্থায়ী ঠিকানা মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা থানার সালদিগা গ্রামে। ২০১৭ সালের ১২ ডিসেম্বর তার স্বামী হোসেন আহমদ সাফ কবালা দলিলমূলে এসএমপির জালালাবাদ থানার ব্রাহ্মণশাসন মৌজায় ৮শ বর্গফুটের একতলা ভবনসহ ২ শতক ৫৬ পয়েন্ট ভূমি ক্রয় করেন। মো. ইসমাইল মিয়া ও শেফুল বেগম জায়গাটি তাদের কাছে বিক্রি করেন। যার জে এল নং ৭৭, খতিয়ান নং ১২৬ ও ১৩৬, দাগ নং ২৪৬, বিএস ২১৫৯। এর পর থেকে ভূমিসহ এ বাসাটি দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠে প্রতিবেশি আব্দুর রউফ, ইউনুছ মিয়া ও তার সহযোগীরা।

ফারহানা হোসেন আরো অভিযোগ করেন আব্দুর রউফ ও ইউনুছ মিয়া তাদের সহযোগীদের নিয়ে বসতবাড়িটি দখল করতে না পারলেও তারা থেমে নেই। নানাভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে যাচ্ছে তারা। ফারহানা জানান, তার স্বামী বর্তমানে দেশে অবস্থান করছেন। কিছু দিনের মধ্যে তিনি পুনরায় চলে যাবেন। এরপর তিনি সন্তানকে নিয়ে তিনি একাই বাসায় থাকবেন। এতে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছেন। এই পরিস্থিতিতে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন ফারহানা হোসেন। সংবাদ সম্মেলনে ফারহানা হোসেনর স্বামী হোসেন আহমদ, পুত্র ইউসুফ হোসেন, ভূমি বিক্রেতা ইসমাইল হোসেন ও সেফুল বেগম উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন