বৃষ্টি আর যানজটে চরম ভোগান্তি

জিন্দাবাজার পয়েন্টে দীর্ঘ যানজট। ছবি- সিলেটের সকাল

মাজেদ আহমদ:: শেষে মুহূর্তে্ ঈদের কেনাকাটা করতে আসা মানুষ পড়েছেন বৃষ্টি আর যানজটের কবলে। বৃষ্টি আর যানজটের কবলে পড়ে ঈদের বাজার করতে আসা অনেকেই বিরক্তি প্রকাশ করেছেন।

শনিবার কিংবা রোববার বাংলাদেশে পালিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদের কেনাকাটা করতে সবাই ভীড় করছেন নগরীর বিপনী বিতানগুলোতে। বৃষ্টি আর যানজটে তাদের অবস্থা নাভিশ্বাস।

আজ বুধবার সারাদিন গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির পর সন্ধ্যার পর বৃষ্টি থামলে নগরীর মার্টগুলোতে উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে।

আজ সকাল থেকেই ছিল না সূর্যর তেজ। বরং সারাদিনই ছিল গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি। এরমধ্যে বিকেলের দিকে হয়েছে কছুটা ভারী বৃষ্টিপাত।

বৃষ্টির কারনে নগরীর রাস্তায় কাদা আর পানির কারনে বিপাকে পড়েন ঈদের কেনাকাটা করতে আসা মানুষ। বৃষ্টির কারনে বেশ অসুবিধায় পড়েন স্বপরিবারে ঈদ বাজার করতে আসা লোকমান আহমদ। তিনি বলেন, ‘ঈদের কেনাকাটা করতে এসে বেশ বিপদে পড়ে গেলাম। বৃষ্টির কারনে ছেলেমেয়েদের নিয়ে বিভিন্ন মার্কেটে ঘুরা যাচ্ছে না। এখন হয়তো এক জায়গা থেকেই সবার ঈদবাজার করতে হবে।’

এদিকে বৃষ্টির কারনে ফুটপাতে বসা দোকানীরা পড়েছেন আরো বেশি বিপদে। একেতো বৃষ্টির কারনে মালপত্র ঢেকে রাখতে হচ্ছে। তারওপর ক্রেতার সংখ্যাও কম।

জিন্দাবাজারের ফুটপাতে বসা টি-শার্ট ব্যবসায়ী আব্দুল হামিদ বলেন, ‘বৃষ্টির কারনে ঈদের ব্যবসায় মন্দা দেখা দিয়েছে। ঈদের মাত্র দু-তিন দিন আছে। এভাকে বৃষ্টি হলে আমাদের অবস্থা খারাপ হয়ে যাবে।’

বৃষ্টির পাশাপাশি ঈদের নিয়মিত সমস্যা যানজট। জিন্দাবাজার, বন্দরবাজার, চৌহাট্টা, আম্বরখানাসহ নগরীর প্রায় প্রতিটি পয়েন্টে দীর্ঘসময় যানজটের কবলে পড়তে হচ্ছে ঈদ বাজার করতে আসা ক্রেতারা।

লাভলী দেব নামের এক তরুণী জানান, ‌‌‘ঈদে যেন যানজট কমন হয়ে গেছে। টিলাগড় পয়েন্ট থেকে জিন্দাবাজার আসতে লেগেছে এক ঘন্টা। মোটর সাইকেলগুলো নিয়ম না মেনে উল্টো দিকে চলাচল করায় সমস্যা আরো বেড়ে যাচ্ছে।’

শেয়ার করুন