চমকে শুরু সেনেগালের

মিজান আহমদ চৌধুরী : আফ্রিকার দেশ সেনেগাল প্রথম বারের মত বিশ্বকাপে এসেছিল ২০০২ সালে। সবাইকে চমকে দিয়ে সেবার কোয়ার্টার ফাইনালে খেলেছিল দলটি। এরপর ১৬ বছরের দীর্ঘ বিরতি। দলটির বিশ্বকাপ প্রত্যাবর্তন হলো রাশিয়ায়। তবে চমকে দেয়ার স্বভাবটা যেন রয়েই গিয়েছে সেনেগালিজদের ধমনিতে। এবার নিজেদের প্রথম ম্যাচে তারা হারিয়ে দিয়েছে শক্তিশালী দল পোল্যান্ডকে। যদিও শেষ মুহূর্তে পোলিশদের গোল ম্যাচে অন্যরকম কিছুর আভাস দিয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলে ম্যাচ জিতে মাঠ ছেড়েছে সেনেগাল।

প্রথমে আত্মঘাতি গোলে কপাল পুড়ল পোল্যান্ডের। তারপর ইউরোপিয়ান দলটিকে হতাশায় ডুবিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এম’বায়ে নিয়াং। ৮৬ মিনিটে পোলান্ডের গ্রিজেগৰ্জ ক্রিকোওইয়াক একটি গোল শোধ করলেও শেষ রক্ষা হয়নি। স্পার্তাক স্টেডিয়ামে এইচ গ্রুপের ম্যাচে হিসাবের ছক উল্টে দিয়ে পোলিশদের বিপক্ষে সেনেগাল জিতেছে ২-১ গোলে। অবশ্য সেনেগালের দুটো গোলই ছিল পোলান্ডের উপহার!

ম্যাচের ৩৭ মিনিটে আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় সেনেগাল। মাবায়ে নিয়াং পাস বাড়িয়েছিলেন সতীর্থ সাদিয়ো মানের দিকে। এই তারকা স্ট্রাইকার এরপরই ইদ্রিসা গিইয়ের দিকে বল পাঠান। পোস্টের বাইরে দিয়ে যাওয়া বল পায়ে লাগিয়ে নিজেদের জালে পাঠিয়ে দেন থিয়াগো সিওনেক।

পরের গোলটি বুঝে উঠার আগেই হজম করে পোলিশরা। ৬০ মিনিটে পোল্যান্ডের গ্রেজেগর্জ ক্রাইচোভিয়াক বল ব্যাক পাস সেনেগালের বদলী খেলোয়াড় এম’বায়ে নিয়াং পেয়ে যান। বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে প্রতিপক্ষের গোলকিপার ভোইসিয়েখ সেজেকজেসনি বোকা বানিয়ে বল পাঠান জালে (২-০)। নিজেদের রক্ষণভাগের ভুলেই এই গোলটা হজম করে পোলিশরা। মাঠে নামার ১ মিনিটের মধ্যে গোল করেন নিয়াং। ১৯৯৮ বিশ্বকাপে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে বদলী হয়ে নেমে ১৬ সেকেন্ডে গোল করেন ডেনমার্কের ইবে স্যান্ড। সেই গোলটিকেই মঙ্গলবার মনে করিয়ে দিলেন তিনি।

এরপর অবশ্য শেষদিকে ম্যাচে ফেরার আপ্রাণ চেস্টা করেছে পোলান্ড। ৮৬ মিনিটে ব্যাবধান কমালেও ম্যাচে আর ফেরা হয়নি। অথচ ম্যাচটিতে ফেভারিট হিসেবেই খেলতে নামে পোলিশরা। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে দলটি আট নম্বরে। দলে ছিলেন স্ট্রাইকার রবার্ট লিওয়ানডস্কির ফুটবলার। বুন্দেসলিগায় গোলবন্যায় ভাসালেও তাকে একটুও সুযোগ দেননি সেনেগালের ডিফেন্সের ফুটবলাররা।

অন্যদিকে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে সেনেগাল ২৭ নম্বরে। ১৬ বছর পর বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়েই দারুণ এক অভিজ্ঞতা সঙ্গী করে প্রথম ম্যাচে তুলে নিল জয়। ২০০২-এর পর বিশ্বকাপের বড় মঞ্চে ফিরে চমক দেখাল আফ্রিকার এই দেশটি। সেবার উঠেছিল শেষ আটে, এবার সূচনাটা দুর্দান্ত হল তাদের।

 

 

শেয়ার করুন