উজানের ঢলে কানাইঘাটের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, সুরমার পানি বিপদসীমা ছাড়িয়ে

আলা উদ্দিন, কানাইঘাট প্রতিনিধি :: টানা বৃষ্টিপাত আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে কানাইঘাটে সুরমা নদী উত্তাল হয়ে উঠেছে। এ এলাকায় সুরমা নদীর পানি বর্তমানে বিপদ সীমার ২০৪ সে. মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার ভোর রাত থেকে কানাইঘাট বাজার ও পৌরসভা সহ উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে বন্যা দেখা দেওয়ায় প্রায় দুই লক্ষ মানুষ পানি বন্দি রয়েছেন এবং কানাইঘাট বাজারে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। সিলেটের সাথে কানাইঘাটের যোগাযোগ বিচ্ছিহ্ন রয়েছে।

জানা যায়, কানাইঘাট উপজেলার প্রায় ১০০টির মতো গ্রামের বাড়ি ঘর পানিতে তলিয়ে গেছে। তলিয়ে যাওয়া ঘর বাড়ির লোকজন বর্তমানে আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন।

লক্ষীপ্রসাদ পুর্ব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফয়াজ আহমদ জানান, ভারত থেকে নেমে আসা জোয়ারের পানিতে তার সীমান্তবর্তী ইউনিয়নের মেচা, উজান বারাপৌত, নক্তিপাড়া, কান্দলা, সাউদগ্রাম, বড়গ্রাম ও কালিজুরী গ্রামের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে। এ গ্রামগুলোর মানুষ বর্তমানে পানিবন্দী রয়েছে। সীমান্তবর্তী এলাকায় উজানের জোয়ারে রাজারমাটি, দক্ষিণ লক্ষীপ্রসাদ, উত্তর লক্ষীপ্রসাদ, খুকুবাড়ি, নেহালপুর, কুওরঘড়ি, বাউরভাগ ৪র্থ খন্ড গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন।

বড়চতুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাওঃ আবুল হোসেন চতুলী জানান, তার ইউনিয়নটি বন্যার পানিতে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। কারন সুরমা নদী ও পাশর্^বর্তী জৈন্তাপুর উপজেলার সারি নদীর পানিতে এ ইউপি’র বড়চতুল, সোনাতুলা, কাজিরপাতন, রাঙ্গারাই, দলকিরাই মুক্তাপুর, রায়পুর, নয়াগ্রাম পানিতে তলিয়ে গেছে।

কানাইঘাট পানি উন্নয়ন বোর্ড অফিসের গেজ রিডার ফেরদৌসী বেগম জানান, সকাল ৮টায় কানাইঘাট সুরমা নদীর পানি বিপদ সীমার ২০৪ সে. মি. এর উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।

শেয়ার করুন