দক্ষিণ সুরমায় চাকু দেখিয়ে গাড়িতে তোলে ছিনতাই, অত:পর….

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: সিলেটের দক্ষিণ সুরমার হুমায়ুন রশীদ চত্বর থেকে চাকু দেখিয়ে প্রান্ত দাস (২৪) নামের এক তরুণকে প্রাইভেটকারে তোলে তার সাথে থাকা মোবাইল ফোন ও নগদ ৫ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা। তবে, পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই চার ছিনতাইকারীকে প্রাইভেটকারসহ আটক করেছে।

বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মুহম্মদ আবদুল ওয়াহাব। আটককৃতদের কাছ থেকে লুণ্ঠিত মোবাইল ও টাকা উদ্ধার করা হয়েছে, এছাড়া বিরুদ্ধে মোগলাবাজার থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এক বিজ্ঞপ্তিতে তিনি আরো জানান, বৃহস্পতিবার রাত দশটার দিকে ফেঞ্চুগঞ্জ নিয়ে যাওয়ার কথা বলে ছিনতাইচক্রের সদস্যরা প্রান্ত দাসকে তাদের প্রাইভেটকারে (নং-ঢাকা মেট্রো-গ-১৫-৩৩৪৩) উঠায়। কিছুপথ যাওয়ার পর তারা চাকু দিয়ে তাকে হত্যার ভয় দেখিয়ে তার সাথে থাকা একটি স্যামসং জে-৭ মোবাইল সেট ও নগদ ৫,০০০/-টাকা জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয় এবং শ্রীরামপুর বাইপাসের নতুন নির্মানাধীন ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়ন অফিস সংলগ্ন রাস্তার উপর ফেলে চলে যায়।

এসময় প্রান্ত দাস তাৎক্ষনিক বিষয়টি পারাইরচক পয়েন্টে দায়িত্বরত পুলিশ অফিসার এসআই জয়ন্ত কুমার দে কে অবগত করলে তিনি তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ছিনতাইকারীদের প্রাইভেটকারটি আটক করার জন্য সিলেট শহরের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযানের মোগলাবাজার থানার সামনে হতে ঘটনায় ব্যবহৃত সিলভার রংয়ের প্রাইভেটকারসহ জুবায়ের আহমদ জুবেল (২১), মো. তারেক মিয়া (২০), গকুল মালাকার (২০) ও বিভাস মালাকারকে (২৩) আটক করে পুলিশ। তারা চারজনই মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার পাঁচগাঁওয়ের বাসিন্দা।

উক্ত বিষয়ে ভিকটিম প্রান্ত দাস বাদী হয়ে উল্লেখিত ছিনতাইকারীদের নাম উল্লেখ করে অভিযোগ দায়ের করেন। এরই প্রেক্ষিতে মোগলাবাজার থানার মামলা নং-১০ তারিখ-২৫/০৫/২০১৮খ্রিঃ, ধারা-আইন শৃংখলা বিঘœকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আইন ২০০২, সংশোধনী/২০০৯ এর ৪(১)/৫ রুজু হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামীরা নিজেদেরকে মামলার ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত মর্মে স্বীকার করেছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন