কিডনির পাথর থেকে রক্ষা পেতে দশ খাবার

স্বাস্থ্য ডেস্ক:: দেহের দূষিত উপাদান বের করে দিয়ে দেহকে সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে কিডনি। রক্তের বর্জ্য এবং তরলের ভারসাম্য রক্ষা করে এই দুটি অঙ্গ। কাজেই কিডনির যত্ন নেওয়া অতি জরুরি। অনেক সময়ই কিডনিতে ক্ষুদ্রাকৃতি পাথর গঠিত হয়। যখন খনিজ এবং লবণ ক্রিস্টাল আকারে জমা হতে থাকে তখনই কিডনিতে পাথরের মতো শক্ত হয়ে জমতে থাকে।

প্রাণীজ প্রোটিন, সোডিয়াম, পরিশোধিত চিনি, ফ্রুকটোজ, আঙুরের রস, আপেলের রস এবং অক্সালেট বেশি পরিমাণে খেলে কিডনিতে পাথর হওয়ার ঝুঁকি বাড়তে থাকে।

অক্সালেট বেশি থাকে পালং শাক, বাদাম, চকোলেট, কোকোয়া, স্ট্রবেরি ইত্যাদিতেও।  কিডনির পাথর থেকে রক্ষা পেতে বিশেষজ্ঞরা ১০টি খাবারের কথা বলে থাকেন। এগুলো খেলে কিডনিতে পাথর হওয়ার সম্ভাবনা কমে।

আনার: আনার ফলের রস বানিয়ে খেলে উপকার পাবেন। এর রস কিংবা বিচি কিডনির পাথর বের করে দিতে সহায়ক। পাশাপাশি অন্যান্য বিষাক্ত উপাদানও দূর করে।

লেবুর রস এবং অলিভ ওয়েল : এক কাপের চার ভাগের একভাগ লেবুর রসে মিশিয়ে নিন চার চা চামচ অলিভ ওয়েল। এবার এটা এক গ্লাস পানির সঙ্গে মিশিয়ে খেয়ে নিন। এভাবে প্রতিদিন খেলে কিডনির পাথর দূরীকরণের উপকার পাবেন।

লেমোনেড :  এই পানীয় অনেকের কাছে খুবই প্রিয়। লেমোনেড কিন্তু ক্যালসিয়াম জমতে বাধা দেয়। কাজেই এটা খেলে কিডনিতে পাথর জমার ঝুঁকি অনেকটা কমে আসে। সেই সঙ্গে কিডনিতে পাথর থাকলেও তা দূর করতে কাজ করে।

শীমের বিচি: এক বাটি শীমের বিচি সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। এবার প্রেসার কুকার বা পানিতে সেদ্ধ করুন। একটি সুতি বা মসলিন কাপড়ে বিচিগুলো নিয়ে পানি ঝরতে দিন। এ অবস্থায় ৭-৮ ঘণ্টা রেখে দিন। যে পানি ঝরবে তা পান করবেন। প্রতিদিন খাওয়ার চেষ্টা করবেন। এতে কিডনির পাথর দূর হওয়ার কথা বলেন বিশেষজ্ঞরা। আবার শীমের বিচিও খেতে পারবেন।

সাইট্রাস ফল:  কমলা, কলা, টমেটো কিংবা জাম্বারার মতো সাইট্রাস ফল ক্যালসিয়াম ভেঙে দেয়। এতে পাথর জমার সম্ভাবনা নষ্ট হয়।

পুদিনা পাতা: চা বানানো সময় তাতে পুদিনা পাতা দিতে পারেন। এককাপ চায়ে ৫-৬টি পুদিনা পাতা দিন। এবার তা ১০ মিনিট ধরে ফুটিয়ে নিন। তাতে মেশাতে পারেন এক চা চামচ মধু। তা ছাড়া প্রতি সকালে পুদিনা পাতা চিবিয়ে খেলেও কিডনির পাথর এবং দূষিত উপাদান দূর হয়।

বেকিং সোডা: এক গ্লাস পানিতে এক টেবিল চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন। এটা খেয়ে ফেলুন। বেকিং সোডা কিডনির পাথর গলিয়ে দেয়। এটি ইউরিক এসিড গঠন করে এবং ব্যথা কমায়।

অ্যাপল সিডার ভিনেগার: এক চা চামচ অ্যাপল সিডার ভিনেগারে মিশিয়ে নিন ১ চা চামচ মধু। এক এককাপ হালকা উষ্ণ পানিতে মেশান এবং খেয়ে ফেলুন। দিনে দুই বার করে খেলে কিডনির পাথর নিয়ে চিন্তা নেই।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

শেয়ার করুন