তৃতীয় মেয়াদে সাফের সভাপতি হলেন সালাউদ্দিন

স্পোর্টস ডেস্ক :: দুই বছর আগে তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন কাজী মোহাম্মদ সালাউদ্দিন।

দেশের গণ্ডি পেরিয়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (সাফ) সভাপতি নির্বাচিত হলেন বাফুফে বস। গতকাল ঢাকায় অনুষ্ঠিত  সাফের কংগ্রেস ও নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হলেন সালাউদ্দিন। ২০০৯ সালের অক্টোবর থেকে কাজী সালাউদ্দিন সাফের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত এ সংগঠনের প্রথম সভাপতি ছিলেন ভারতের পি.পি লক্ষমানান। ২০০১ পর্যন্ত দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

তারপর থেকে ২০০৯ পর্যন্ত সাফের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন নেপালের গনেশ থাপা। এক সময় সাফ হয়েছিল গনেশ থাপার পকেট সংগঠন। একটি সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ছাড়া সাফের আর কোনো কার্যক্রম ছিল না।

সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশন (সাফ) গঠন হয়েছিল বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা ও নেপালকে নিয়ে।

২০০০ সালে সাফের সদস্য হয় ভুটান এবং ২০০৫ সালে অষ্টম দেশ হিসেবে এ সংগঠনের সদস্য হয়েছিল আফগানিস্তান। ২০১৫ সালে দেশটি বেরিয়ে যায় সাউথ এশিয়ার এ সংগঠন থেকে। সাফের ১২ সদস্যের নির্বাহী কমিটির মধ্যে ভোট হয় কেবল সভাপতি ও ৩ সহসভাপতি পদে। সাধারণ সম্পাদক বেতনভুক্ত। ৭ দেশের প্রতিনিধি নির্বাহী কমিটির সদস্য। তৃতীয় মেয়াদে সাফের সভাপতি নির্বাচিত হয়ে সালাউদ্দিন বলেন, পুনরায়  আমাকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত করায় সবাইকে ধন্যবাদ। আমরা সাফের পরবর্তী চার বছরের পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করেছি। গত বছরগুলোর আয়োজন নিয়মিত করতে চাই পাশাপাশি সাফ ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপটি মাঠে গড়াতে চাই। ২০০৯ সালে সাফ ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপ আয়োজনের ঘোষণা দিলেও এখনো আলোর মুখ দেখেনি টুর্নামেন্টটি। সাফের ডেলিগেটসরা হোটেল ত্যাগ করে বিমানবন্দরে যাবেন এজন্য সাংবাদিকদের বেশি প্রশ্নের সুযোগ পায়নি।

২০১৭ সালে ভারত ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজন করেছে এককভাবে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো যাতে সামনে ফিফা ও এএফসির আরো টুর্নামেন্টে একসঙ্গে আয়োজন করতে পারে সেজন্য এক হয়ে কাজ করতে হবে সাফ কংগ্রেস শেষে এমনটাই বলেছেন অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি প্রফুল প্যাটেল। তিনি দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবল সম্পর্কে বলেন, ‘সাফ অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে সুসম্পর্ক রয়েছে। এই সম্পর্ক কাজে লাগিয়ে ফুটবলের উন্নয়ন করতে হবে। ভারত গত বছর একক ভাবে অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপ করেছে। সামনে আরো বড় ফিফা ও এএফসির টুর্নামেন্ট শুধু ভারত একা নয় দক্ষিণ এশিয়ার আরো কয়েকটি দেশ মিলে করা যেতে পারে। এই ব্যাপারে অবশ্যই আমাদের এএফসি ও ফিফা সহযোগিতা করবে। সাফের কংগ্রেসে উপস্থিত ছিলেন পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, শ্রীলঙ্কার ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতিসহ আরো অনেক কর্মকর্তাবৃন্দ। দক্ষিণ কোরিয়া ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি মং গাই দুমও উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন