কমনওয়েলথ গেমসে রুপা জিতলো বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক :: শেষ শটটি মারার আগে টেলিভিশন ক্যামেরায় বারবার দেখাচ্ছিল আবদুল্লাহ হেল বাকীর মুখ। স্নায়ুচাপ নিয়ন্ত্রণে রেখে যতটা সম্ভব রাইফেলের ট্রিগারে আঙুল ধরে রেখেছিলেন।

ধারাভাষ্যকারের কণ্ঠে তখন শুধুই দুজনের নাম—অস্ট্রেলিয়ার ডেন স্যাম্পসন আর বাংলাদেশের আবদুল্লাহ হেল বাকী। শেষ শটে স্যাম্পসন ৯.৩ পয়েন্ট স্কোর করায় বাকীর সোনা জেতার সম্ভাবনা ভীষণ উজ্জ্বল হয়ে ওঠে। শুধু শেষ শটে বাকি ১০.১ মারলেই ১৬ বছর পর আবারও বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত বাজত কমনওয়েলথ গেমসে।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত পারলেন না বাকী। মারলেন ৯.৭ পয়েন্ট! অস্ট্রেলিয়ার গোল্ডকোস্টে ছেলেদের ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে আজ রুপা জিতলেন বাংলাদেশের শুটার। এই ইভেন্টে সব মিলিয়ে বাকীর স্কোর ২৪৪.৭। আর ২৪৫.০ স্কোর পেয়ে সোনা জিতলেন স্যাম্পসন। যেটি কমনওয়েলথ গেমসের রেকর্ড পয়েন্ট। আর ২২৪.১ পয়েন্ট পেয়ে এই ইভেন্টে ব্রোঞ্জ ভারতের রবি কুমারের।

ঢাকা ছাড়ার আগে কর্মকর্তারা শুধু শুটিংয়েই পদক জয়ের সম্ভাবনার কথা বলেছিলেন। সেই শুটিংয়েই এল বাংলাদেশের প্রথম পদক। এর আগে ২০১৪ সালে সর্বশেষ গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসেও বাকী জিতেছিলেন রুপা। কিন্তু এবার সম্ভাবনার খুব কাছে গিয়েও পারলেন না। আসলে বাকী এই ইভেন্টে অংশ নেবেন কি না, সেটা নিজেই জানতেন না!

গেমস শুরুর আগেও কোচ ক্লাভস ক্রিস্টেয়নসেন বাকীর বদলে এই ইভেন্টে রিসালাতুল ইসলামকে এগিয়ে রেখেছিলেন। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে রিসালাতুল ইসলামের পারফরম্যান্সের গ্রাফ নিচে নেমে যায়। এরপরই সুযোগ মেলে বাকীর। শেষ পর্যন্ত অভিজ্ঞ বাকী বাছাইয়ে ষষ্ঠ হয়ে ওঠেন ফাইনালে। এর আগে ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে সোনা জিতেছিলেন বাংলাদেশের আসিফ হোসেন খান। ম্যানচেস্টারে ২০০২ কমনওয়েলথ গেমসে আসিফ হারিয়েছিলেন ভারতের অভিনব বিন্দ্রাকে।-প্রথম আলো

শেয়ার করুন