যুক্তরাজ্যে বর্ণবাদ ও ইসলাম-বিদ্বেষের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ

গ্রেটার সিলেট ডেভেলাপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল ইউকে’র (জিএসসি) নেতৃবৃন্দের সরব অংশগ্রহণ

লন্ডন প্রতিনিধি :: যুক্তরাজ্যে বর্ণবাদ ও ইসলাম-বিদ্বেষের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৭ মার্চ শনিবার দেশটির বিভিন্ন স্থানে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভে বর্ণবাদ, উগ্রপন্থা, ইসলাম-বিদ্বেষ ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নীতির নিন্দা জানান বিক্ষোভকারীরা।

লন্ডন, কার্ডিফ ও গ্লাসগোর মতো শহরগুলোতে এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ‘পানিশ অ্যা মুসলিম ডে’-এর মতো উগ্রবাদী তৎপরতার নিন্দা জানানো হয়। সংহতি জানানো হয় শরণার্থী ও অভিবাসীদের অধিকারের প্রতি। বিক্ষোভকারীরা ‘অভিবাসী ও শরণার্থীদের স্বাগত’, ‘বর্ণবাদী হামলা বন্ধ কর’ প্রভৃতি স্লোগান দেন।

বর্ণবাদবিরোধী সংগঠন ‘স্ট্যান্ড আপ রেসিজম’ এ বিক্ষোভের আয়োজন করে। যুক্তরাজ্যজুড়ে প্রায় অর্ধলক্ষাধিক মানুষ এতে অংশ নেন। অনলাইনে বর্ণবাদী আক্রমণের শিকার লেবার পার্টির দুই এমপি ডেভিড ল্যামি এবং দিয়ানে অ্যাবোট-ও শনিবারের বিক্ষোভে উপস্থিত হন।

এদিকে, ইসলাম ধর্ম বিদ্ধেষী ও বর্ণবাদ বিরোধী জাতীয় বিক্ষোভ কর্মসূচীতে অংশ নেন যুক্তরাজ্যে বসবাসরত প্রবাসী সিলেটবাসীর সর্ববৃহৎ সামাজিক সংগঠন গ্রেটার সিলেট ডেভেলাপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল ইউকে’র নেতৃবৃন্দরা। সংগঠনের নবনির্বাচিত কেন্দ্রীয় চেয়ারপার্সন ব্যারিষ্টার আতাউর রহমানের নেতৃত্বে তুষারপাত ও প্রচন্ড শীতের বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে তারা এ কর্মসূচিতে অংশ নেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- গ্রেটার সিলেট ডেভেলাপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল ইউকের কেন্দ্রীয় এবং সাউথ ইষ্ট রিজিওন ও ইষ্ট লন্ডন শাখার এম, এ, আজিজ, আব্দুল মালিক কুটি, সূফি সোহেল আহম্মদ, আবুল মিয়া, জিএসসি সদস্য তাজউদ্দীন, মোক্তার আহম্মদ এবং সাউথ ইষ্ট রিজিওন ও ইষ্ট লন্ডন শাখার অন্যান্য নের্তৃবৃন্দ সহ কাউন্সিলার মোঃ শাহ আলম প্রমূখ।

বিক্ষোভকারীগণ প্রথমে বিবিসির সদরদপ্তরের সামনে প্রতিবাদ সভা করেন এবং তুষারপাত উপেক্ষা করে প্রায় দেড় কিলোমিটার দীর্ঘ মিছিল নিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাসস্থান ১০ নম্বর ডাউনিং ষ্ট্রিটের সামনে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করেন । সমাবেশ শেষে প্রতিবাদকারীদের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয় ।

শেয়ার করুন